মনজুরুল ইসলাম (দিনাজপুর২৪.কম) কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে বেসরকারী সংস্থা মহিদেব যুব সমাজ কল্যাণ সমিতি(এমজেএসকেএস)র বাস্তবায়নে নেটজ-বাংলাদেশ ও বিএম জেড এর আর্থিক সহায়তায় বাংলাদেশের বঞ্চিত অঞ্চল সমুহে ক্ষুধা ও দারিদ্র বিমোচন (সুকাল) প্রকল্পের অধিনে করোনা ভাইরাস মহামারীতে উপজেলায় ৪ দিন ব্যাপী ৬টি ইউনিয়নে ১০৯৯ জন কর্মহীনদের মাঝে জরুরী খাদ্য ও ঔষধ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুন্নবী চৌধুরী খোকন জরুরী খাদ্য ও ঔষধ বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ফিরুজুল ইসলাম। উপজেলার চৌধুরী বাজার বঙ্গ বন্ধু উচ্চ বিদ্যালয়,দক্ষিণ বলদিয়া হায়দারীয়া দাখিল মাদ্রাসা,পাইকেরছড়া বরকতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়,তিলাই হামিদা খানম উচ্চ বিদ্যালয়,দক্ষিণ চর ভুরুঙ্গামারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,আন্ধারীঝাড় চর বারুইটারী স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদ্রাসাসহ মোট ২০টি স্পট থেকে এসব সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সংস্থার ভুরুঙ্গামারী সুকাল প্রকল্প ম্যানেজার আব্দুল মান্নানের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় তিলাই ইউনিয়নে ২২৭ জন, চরভুরুঙ্গামারী ইউনিয়নের ১৫৫ জন,বঙ্গসোনাহাট ইউনিয়নের ১৬০ জন,বলদিয়া ইউনিয়নে ১৬৫ জন,পাইকেরছড়া ইউনিয়নে ২৪২ জন,আন্ধারীঝাড় ইউনিয়নে ১৫০ জনসহ মোট ১০৯৯ জন কর্মহীন সদস্যদের মাঝে এই জরুরীখাদ্য-ঔষধ সামগ্রী প্রদান করা হয়। প্রতিটি ইউনিয়নে এই জরুরী খাদ্য-ঔষধ বিতরণকালে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান,ইউপি সদস্য ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন। কর্মহীন প্রতিটি পরিবারে ২০ কেজি চাউল,৫ কেজি গোল আলু,২ কেজি মসুর ডাল,২ কেজি আয়োডিনযুক্ত লবণ,১ লিটার সয়াবিন তেল,১ কেজি চিনি,১ কেজি সুজি,২টি গোসলের সাবান,১ টি কাপড় কাচা সাবান,২ টি মাস্ক,২ পাতা প্যারাসিটামল ও ৫ টি খাবার স্যালাইন বিতরণ করা হয়। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সংস্থার টেকনিক্যাল অফিসার আব্দুস সবুর,মাঠ সহায়ক শ্রী মতি কনিকা রায়,নজরুল ইসলাম, ও আরিফুর রহমান প্রমুখ। প্রকল্প ম্যানেজার আব্দুল মানান জানান, এমজেএসকেএস সুকাল প্রকল্প ভুরুঙ্গামারী উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে ১০৯৯ হতদরিদ্রদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে আসছে। করোনা মহামারীতে প্রকল্পের সদস্যরা কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে।