নুরুজ্জামান (দিনাজপুর২৪.কম) কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কাতলামারী এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে কুষ্টিয়ার আলোচিত জাসদ নেতা পাঞ্জের হত্যা মামলার অন্যতম আসামি নাজমুল ইসলাম সাগর (২৯) নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন পুলিশের দুই সদস্য। বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানায়, রাত সোয়া ২টার দিকে তারা জানতে পারে মিরপুর উপজেলার কাতলামারী এলাকার কুষ্টিয়া-মেহেরপুর সড়কে গাছ কেটে একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে মিরপুর থানার টহল পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছুলে ডাকাতরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে ও কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। এ সময় আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি করলে উভয়পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ হয়। এতে নাজমুল ইসলাম সাগর গুলিবিদ্ধ হয় এবং অন্যরা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় সাগরকে উদ্ধার করে মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি সাটারগান, তিন রাউন্ড গুলি ও দুটি রামদা উদ্ধার করে। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালালউদ্দিন আহামেদ জানান, বন্দুকযুদ্ধে নিহত নাজমুল ইসলাম সাগর কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার খলিশাকুন্ডি কামারপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। তিনি চাঞ্চল্যকর জাসদ নেতা পাঞ্জের হত্যা মামলার অন্যতম আসামি। ওই মামলায় জামিনে মুক্তি পেয়ে তিনি ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছিলেন।

তার বিরুদ্ধে মিরপুর ও দৌলতপুর থানায় অন্তত চারটি মামলা রয়েছে। পুলিশ নিহতের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। -(ডেস্ক)