(দিনাজপুর২৪.কম) কুষ্টিয়ায় পৃথক দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত হয়েছেন। এরমধ্যে ঈশ্বরদীতে ট্রাক-সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে মারা গেছেন একই পরিবারের ৪জনসহ ৫ জন।

মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় কুষ্টিয়ার ঈশ্বরদী মহাসড়কের লালনশাহ সেতু সংলগ্ন যাত্রী ছাউনির সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, সিএনজি চালক জামান আহমেদ (৩২), যাত্রী মেজবাহ উদ্দিন (৪০) ও তার মা মাহমুদা খাতুন, স্ত্রী রুনা খাতুন (২৬) এবং ছেলে রুসদী (৭)।

হাসপাতাল ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঝিনাইদহ থেকে রাজশাহী যাওয়ার পথে লালন শাহ সেতু সংলগ্ন যাত্রীছাউনির সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা দ্রুতগামী একটি ট্রাক সিএনজি অটোরিকশাকে চাপা দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলেই সিএনজি চালক এবং মেজবাহ উদ্দিনের স্ত্রী মারা যান। হাসপাতালে নেওয়ার পর মেজবাহউদ্দিন ও তার ছেলে  এবং মা মাহমুদা খাতুন চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যান।

অন্যদিকে মঙ্গলবার সকালে ট্রেনের ধাক্কায় ট্রলি ছিটকে পড়ে চালক ও হেলপার নিহত হয়েছেন। মিরপুর উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের কাটদহচর রেলক্রসিংয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- কাওছার (৩৫) ও মহিবুল (৪০)।

কাওছার উপজেলার ছাতিয়ান ইউনিয়নের বেশিনগর গ্রামের আজগর আলীর ছেলে ও একই এলাকার মহিবুল। নিহতরা ওই ট্রলির চালক ও হেলপার বলে জানায় পুলিশ।

পোড়াদহ জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন খন্দকার জানান, খুলনা থেকে ছেড়ে আসা রাজশাহীগামী ‘কপোতাক্ষ আন্তঃনগর’ ট্রেনটি কাটদহচর রেলক্রসিং অতিক্রমের সময় স্যালোইঞ্জিনচালিত একটি ট্রলি রেললাইন পার হতে যায়। এ সময়ে ট্রেনের ধাক্কায় ট্রলিটি ছিটকে পড়ে। এতে ঘটনাস্থলে দুই যুবক মারা যান। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করে। -ডেস্ক