(দিনাজপুর২৪.কম) লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় এনজিওর কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে না পেরে সুমি আক্তার (২৫) নামের এক গৃহবধূর আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে। আজ বুধবার সকালে শহরের পোস্ট অফিস সড়কের বয়াতি বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত গৃহবধূ ওই এলাকার রিকশাচালক মনির হোসেনের স্ত্রী। তার দুই সন্তান রয়েছে। এ ঘটনার মনির হোসেন থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

গৃহবধূর স্বামী জানান, অভাবের কারণে ব্র্যাকসহ কয়েকটি এনজিও এবং স্থানীয় সমিতি থেকে প্রায় দুই লাখ টাকা ঋণ নেন তারা। ওই টাকা দিয়ে ঘর তৈরি এবং রিকশা কেনেন। সপ্তাহে কয়েকদিন এনজিওগুলোকে ঋণের কিস্তি দিতে হয়।

মনির হোসেন আরও জানান, অভাবের সংসারে করোনার প্রভাবে সমস্যা আরও প্রকট হয়। বেশি অভাবগ্রস্ত হয়ে পড়ায় সময়মতো কিস্তি পরিশোধ করতে পারছিলেন না তারা। কিন্তু এনজিও এবং সমিতির কর্মকর্তারা প্রতিদিন কিস্তি আদায়ের জন্য মানুষিক নির্যাতন করত। আজ বুধবার কিস্তির টাকার জন্য কর্মকর্তারা চাপ দিলে স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে সুমি নিজ কক্ষে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজি নাজমুল কাদের গুলজার বলেন, ‘কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে না পেরে আত্মহত্যা করা দুঃখজনক।’ অসহায় পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেন তিনি।

এ বিষয়ে রায়পুর থানার ওসি আবদুল জলিল বলেন, ‘গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল পাঠানো হয়েছে। থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে।’ -ডেস্ক