(দিনাজপুর২৪.কম) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভিডিও বার্তা পোস্ট করেছিল মামিজা রহমান রায়া নামে এক কিশোরী। বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন এ কিশোরীর ইচ্ছা পূরণ করে তার সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে ভিডিও কলে কথা বলেছেন সরকার প্রধান। বিশেষ এই মুহুর্তের দুটি চিত্র প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপিকা অপু উকিল।

নিজের ফেসবুকে আইডিতে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে একটি পোস্ট দেন অপু উকিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রায়া ভিডিও কলে কথা বলছেন, এমন দুটি ছবি পোস্ট করে অপু লেখেন- ‘নিজের জীবনকে জনগণের জন্য উৎসর্গ করে দিয়ে যিনি প্রতিটি মুহূর্ত এদেশের মানুষের স্বপ্ন সত্যি করতে চান, ইচ্ছা পূরণ করতে চান। তিনি জাতির জনকের কন্যা মানবতার বাতিঘর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। এক কিশোরী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিল। মানবিক প্রধানমন্ত্রী সে কথা জানতে পেরে পরম স্নেহে কিশোরীটির সঙ্গে ভিডিও কল করে শত ব্যস্ততার মধ্যেও কথা বলেছেন।’

হোয়াটসঅ্যাপে শেখ হাসিনা ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন কিশোরী রায়ার ভিডিও কল সম্পর্কিত তথ্য নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এ বি এম সরওয়ার-ই-আলম সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিপ্লব জানান, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন ওই কিশোরী প্রাধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার ইচ্ছা প্রকাশ করে সামাজিকমাধ্যমে একটি ভিডিও বার্তা পোস্ট করে। সেটি প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসে। পরে তিনিই হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে রায়া নামে ওই কিশোরীর সঙ্গে কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব এ বি এম সরওয়ার-ই-আলম সরকার জানান, রায়া তার ভালোবাসার কথা জানিয়ে যে ভিডিও পোস্ট করেছিল, তাতে সাড়া দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে তার সঙ্গে ভিডিওকলে যুক্ত হয়ে কিছুক্ষণ কথা বলেন। এ সময় তিনি রায়ার খোঁজ-খবর নেন।

রায়ার ভিডিও কলে তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার শিক্ষিকা হাসিনা হাফিজ। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। -ডেস্ক