(দিনাজপুর২৪.কম) পাকিস্তানের মাটিতে দাঁড়িয়ে কাশ্মীর নিয়ে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্য করায় তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তায়েপ এরদোয়ানকে কড়া ভাষায় সতর্ক করে দিয়েছে ভারত।

কাশ্মীর নিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ানের মন্তব্যে ক্ষুব্ধ প্রতিবাদ জানাতে তুর্কী রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে ভারত। সোমবার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণলয় তুরস্কের রাষ্ট্রদূত শাকির ওজকান তলুনারকে ডেকে পাঠায়।

কাশ্মীর নিয়ে এরদোয়ানের মন্তব্য দু’দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে গুরুতর প্রভাব ফেলবে বলে ভারত সতর্ক করেছে। কাশ্মীর বিরোধের ইতিহাস না জেনে বুঝেই এরদোয়ান মন্তব্য করেছেন বলে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত তলুনারকে জানিয়েছে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পাকিস্তান সফরে গিয়ে দেশটির পার্লামেন্টে কাশ্মীর প্রসঙ্গে ‘বন্ধু’ পাকিস্তানের পাশে থাকার বার্তা দেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, কাশ্মীরে ‘শান্তি’ ফেরাতে পাকিস্তানের যেকোনো পদক্ষেপকেই সমর্থন করবে তার দেশ। এরপর এক বিবৃতিতে দিল্লি জানায়, জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের সিদ্ধান্ত একেবারেই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এ নিয়ে অন্য কোনও দেশ নাক গলালে, তা বরদাস্ত করা হবে না। এমনকি কাশ্মীর নিয়ে এরদোয়ান যা বলেছে তা সম্পূর্ণভাবে খারিজ করে দিয়েছে ভারত।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পাশে বসেই এরদোয়ান বলেন, দ্বন্দ্ব আর অত্যাচার দিয়ে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান হবে না। একমাত্র সুবিচার আর সাম্যের মাধ্যমেই সমাধান হতে পারে। কাশ্মীর যতটা আপনাদের (পাকিস্তান) হৃদয়ের কাছের, ততটাই আমাদের। কথা প্রসঙ্গে প্রথম বিশ্বযুদ্ধকালীন গালিপোলির যুদ্ধের সঙ্গেও বর্তমান কাশ্মীর পরিস্থিতির তুলনা করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তাতে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে ভারত।

উল্লেখ্য, গত সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘের বার্ষিক সাধারণ সভাতেও কাশ্মীর প্রসঙ্গ তুলে ভারতের তীব্র বিরোধিতার মুখে পড়েছিলেন এরদোয়ান। -ডেস্ক