(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) দিন দিন করোনাভাইরাসের সংক্রামণ ও মৃত্যুর হার বৃদ্ধি হওয়ায় নোয়াখালী সদর ও বেগমগঞ্জ উপজেলাকে আংশিক লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। আগামীকাল মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত এ লকডাউন চলবে।

আজ সোমবার বিকেলে নোয়াখালী জেলা প্রশাসক তন্ময় দাস স্বাক্ষরিত এক গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, লকডাউন চলাকালীন এ দুই উপজেলা থেকে কোনো মানুষ অন্য উপজেলায় যাতায়াত করতে পারবে না। অভ্যন্তরীণ সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। খাদ্য, ডাক ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহকারী যানবহন, চিকিৎসক, পুলিশ ও গণমাধ্যমকর্মীদের বহনকারী যানবাহন চলবে।

গণবিজ্ঞপ্তিতে দোকান খোলা রাখা বিষয়ে বলা হয়, মুদি দোকান সপ্তাহে দুদিন (রোববার ও বৃহস্পতিবার) এবং কাঁচা বাজার সপ্তাহে তিনদিন (রোববার, মঙ্গলবার ও বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত) খোলা থাকাবে। ফার্মেসি খোলা থাকবে জোনভিত্তিক। কাঁচা বাজারের জন্য নির্ধারিত স্থান করে দেওয়া হবে। ফার্মেসি কোন কোন এলাকায় কয়দিন করে খোলা থাকবে, তা পরবর্তীতে জানিয়ে দেওয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে গণবিজ্ঞপ্তিতে।

গতকাল রোববার জেলায় সংক্রামণের হার নিয়ন্ত্রণে রাখতে লকডাউনের এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। নোয়াখালী-৪ আসনের সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী, নোয়াখালী-৩ আসনের সাংসদ মামুনুর রশিদ কিরণ, জেলা পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন, সিভিল সার্জন ও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ডা. মোমিনুর রহমানসহ এ সিদ্ধান্ত নেন জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও প্রশাসক তন্ময় দাস। সভায় উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ব্যবসায়ীক নেতা, সেনাবাহিনী, র্যাবসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও সাংবাদিকরা।

উল্লেখ্য, আজ পর্যন্ত জেলায় করোনায় মোট আক্রান্ত ১ হাজার ৯ জন। এর মধ্যে মারা গেছে ২৯ জন। -ডেস্ক রিপোর্ট