-প্রতীকি ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ২য় স্ত্রীর বিরুদ্ধে স্বামীর লিঙ্গ কর্তনের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে গুরুতর আহত হয়েছেন তার স্বামী। এ ঘটনায় ১ম স্ত্রী গত বৃহস্পতিবার কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

আহত হলেন, পাবনার সুজানগর থানার কামারদুলিয়া এলাকার মৃত মইজুদ্দিন সেখের ছেলে মোঃ শরিফুল ইসলাম। তিনি গাজীপুরের কোনবাড়ী এলাকায় নিটিং গার্মেন্টস ও পার্সের দোকান ব্যবসায়ী।

আহতের পরিবার ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শরিফুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর এলাকার সেলিম সেখের বাড়িতে ভাড়া থেকে তার ব্যবসায়ীক কার্যক্রলাপ চালিয়ে আসছেন। এরই মধ্যে গত কয়েক মাস আগে তিনি ১ম স্ত্রী মাকসুদা পারভীনকে না জানিয়ে সুবর্ণা হালিম নামে এক নারীকে ২য় বিয়ে করে ওই ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করে। কিন্তু কিছু দিন ধরে ২য় স্ত্রী-স্বামীর মধ্যে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছে।

এরই জের ধরে গত বুধবার দিবাগত রাতে খাবারের সাথে ঘুমের ট্যাবলেট মিশিয়ে স্বামীকে খাওয়ায় ২য় স্ত্রী সুর্বণা। পরে তিনি অজ্ঞাতনামা আরো ২-৩ জন লোক নিয়ে ঘুমন্ত স্বামীকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার গলায় কাপড় পেছিয়ে শ্বাসরোধের চেষ্টা চালায়। এসময় তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে পুচিয়ে শরিফুল ইসলামের লিঙ্গ কর্তনের চেষ্টা করে। এতে শরিফুল ইসলাম গুরুত্বর আহত হন।

এসময় তার গার্মেন্ট নিট বিক্রি ও জমি বায়নার ৩১ লক্ষ টাকা, ৬ ভরি স্বর্ণালংকারসহ বিভিন্ন মালামাল লুট করে এবং বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে তারা পালিয়ে যায়। কিছু সময় পর তার জ্ঞান ফিরলে বাচাও বাচাও বলে ডাক-চিৎকার শুরু করে। পরে বাসার মালিকসহ আশপাশের লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। স্থানীয় লোকজন তার চিকিৎসার জন্য প্রথমে স্থানীয় তানহা মেডিকেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে গাজীপর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় শরিফুল ইসলামের ১ম স্ত্রী মাকসুদা পারভিন বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। তবে এব্যাপারে অভিযুক্ত ২য় স্ত্রী সুবর্ণা হালিমার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এব্যাপারে শরিফুল ইসলামের ১ম স্ত্রী মাকসুদা পারভিন জানান, পরকিয়া সম্পর্কের জেরে আমার স্বামীকে আটকিয়ে জোর পূর্বক বিবাহ কওে সুবর্ণা হালিম। সে খুবই খারাপ প্রকৃতির লোক ও পর সম্পদ লোভী। ইতিপূর্বে তার একাধিক বিবাহ হয়েছিল এবং তাহার ২ টি সন্তানও আছে। ওইদিন সে ঘুমন্ত অবস্থায় আমার স্বামীর টাকা-পয়সা ও স্বর্ণালংকার লুট করে।

কালিয়াকৈর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ারুল হোসেন জানান, এ ঘটনায় ১ম স্ত্রী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। -ডেস্ক