(দিনাজপুর২৪.কম) সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা ক্রমশ উন্নতির দিচ্ছে যাচ্ছে। তবে কিডনিতে সমস্যা রয়েছে। রক্তে কিছুটা ইনফেকশনও আছে।

এসব সমস্যা সমাধানের পর তার বাইপাস সার্জারি করা হবে। সিঙ্গাপুরের হাসপাতালে অবস্থানরত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডা. আবু নাসার রিজভী মঙ্গলবার (০৫মার্চ) এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুরে আনার সঙ্গে সঙ্গে জরুরি ভিত্তিতে পাঁচজন চিকিৎসকের সমন্বয়ে মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। তারা সকালে বৈঠক করেন।

সেখানে তারা বলেন, ওবায়দুল কাদেরকে বাংলাদেশে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তার অবস্থা এখন স্থিতিশীল আছে। তবে তার কিডনিতে কিছুটা সমস্যা আছে। রক্তে কিছুটা ইনফেকশনও আছে। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে এসব সমস্যার সমাধানের পর তার বাইপাস সার্জারি করা হবে। তার শারীরিক অবস্থা ক্রমশ উন্নতির দিকে যাচ্ছে।

ডা. ফিলিপ কোহের নেতৃত্বাধীন মেডিকেল বোর্ড ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার সার্বিক বিষয়ে মঙ্গলবার হাসপাতালে ব্রিফ করেন। পরে ডা. ফিলিপের বক্তব্যের আলোকে এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে ব্রিফ করেন ডা. রিজভী। এ সময় দেশবাসীর কাছে ওবায়দুল কাদেরের জন্য দোয়া চান তিনি।

ডা. রিজভীর ব্রিফিংয়ের সময় উপস্থিত ছিলেন- ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা কাদের, সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী, সংসদ সদস্য নিজাম হাজারী, সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই-কমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাহে আলম মুরাদ, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

গত রোববার ভোরে হঠাৎ করে ওবায়দুল কাদেরের শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা দেখা দিলে তাকে বিএসএমএমইউতে নিয়ে যাওয়া হয়। দ্রুত এনজিওগ্রাম করার পর তার হার্টে তিনটি ব্লক ধরা পড়ে।

তাৎক্ষণিকভাবে একটি ব্লকে রিং পরানো হয়।এরপর তার শারীরিক অবস্থার আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও করণীয় ঠিক করতে দুপুরেই ভারত থেকে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী প্রসাদ শেঠিকে ঢাকায় উড়িয়ে আনা হয়। ডা. দেবী শেঠির পরামর্শ অনুযায়ী উন্নত চিকিৎসার জন্য ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুর পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। -ডেস্ক