google-site-verification: google5ae70a53735248dc.html কাঁদলেন কাঁদালেন - Dinajpur24 | The Largest Bangla News Paper of Bangladesh কাঁদলেন কাঁদালেন - Dinajpur24 | The Largest Bangla News Paper of Bangladesh
  1. dinajpur24@gmail.com : admin :
  2. erwinhigh@hidebox.org : adriannenaumann :
  3. dinajpur24@gmail.com : akashpcs :
  4. AnnelieseTheissen@final.intained.com : anneliesea57 :
  5. maximohaller896@gay.theworkpc.com : betseyhugh03 :
  6. self@unliwalk.biz : brandymcguinness :
  7. ChristineTrent91@basic.intained.com : christinetrent4 :
  8. CorinneFenston29@join.dobunny.com : corinnefenston5 :
  9. rosettaogren3451@dvd.dns-cloud.net : darrinsmalley71 :
  10. Dinah_Pirkle28@lovemail.top : dinahpirkle35 :
  11. emmie@a.get-bitcoins.online : earnestinemachad :
  12. EugeniaYancey97@join.dobunny.com : eugeniayancey33 :
  13. vandagullettezqsl@yahoo.com : gastonsugerman9 :
  14. cruz.sill.u.s.t.ra.t.eo91.811.4@gmail.com : howardb00686322 :
  15. Kristal-Rhoden26@shoturl.top : kristalrhoden50 :
  16. azegovvasudev@mail.ru : latricebohr8 :
  17. jarrodworsnop@photo-impact.eu : lettie0112 :
  18. cruz.sill.u.strate.o.9.18.114@gmail.com : lonnaaubry38 :
  19. corinehockensmith409@gay.theworkpc.com : meaganfeldman5 :
  20. kenmacdonald@hidebox.org : moset2566069 :
  21. news@dinajpur24.com : nalam :
  22. marianne@e.linklist.club : noblestepp6504 :
  23. NonaShenton@miss.kellergy.com : nonashenton3144 :
  24. armandowray@freundin.ru : normamedlock :
  25. rubyfdb1f@mail.ru : paulinajarman2 :
  26. vaughnfrodsham2412@456.dns-cloud.net : reneseward95 :
  27. Roosevelt_Fontenot@speaker.buypbn.com : rooseveltfonteno :
  28. Sonya.Hite@g.dietingadvise.club : sonya48q5311114 :
  29. gorizontowrostislaw@mail.ru : spencer0759 :
  30. jcsuave@yahoo.com : vaniabarkley :
  31. online@the-nail-gallery-mallorca.com : zoebartels80876 :
বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০১:১৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
নতুন রুপে আসছে দিনাজপুর২৪.কম! ২০১০ সাল থেকে উত্তরবঙ্গের পুরনো নিউজ পোর্টালটির জন্য দেশব্যাপী সাংবাদিক, বিজ্ঞাপনদাতা প্রয়োজন। সারাদেশে সংবাদকর্মী নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা এখনই প্রয়োজনীয় জীবন বৃত্তান্ত সহ সিভি dinajpur24@gmail.com এ ইমেইলে পাঠান।

কাঁদলেন কাঁদালেন

  • আপডেট সময় : সোমবার, ২১ মার্চ, ২০১৬
  • ৩ বার পঠিত

(দিনাজপুর২৪.কম) আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থার (আইসিসি) নানা নিয়মের জালে বাকরুদ্ধ থাকতে হয় ক্রিকেটারদের। তাই বলে অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে পিছপা হন না অনেক ক্রিকেটারই। কিন্তু  সবারই প্রতিবাদের ভাষা হয় ভিন্ন ভিন্ন। সদা প্রাণবন্ত, হাস্যোজ্জ্বল, সংগ্রামী আর কঠিন মাশরাফি বিন মুর্তজার চোখের জলও এক রকম প্রতিবাদের ভাষা। দলের দুই ক্রিকেটার তরুণ তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানিকে অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের জন্য নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। কিন্তু আরাফাত সানিরটা মেনে নেয়া গেলেও তাসকিনের নিষেধাজ্ঞা মেনে নেয়া খুব কঠিন। হঠাৎ করেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে এমন অন্যায় সিদ্ধান্ত মেনে নেয়া কতটা কঠিন তা প্রমাণ করলো মাশরাফি বিন মুর্তজার চোখের জল। সংবাদ সম্মেলনে যে অধিনায়ক সবাইকে হাসিয়ে ছাড়েন। সেই অধিনায়কের চোখের দুই কোণ বেঁয়ে জলের ধারা! এমনকি গাড়িতে উঠতে উঠতে বারবার টি-শার্টে চোখ মুছেও থামাতে পারছিলেন না তার অশ্রু। দলের দুই তরুণের পাশে দাঁড়াতে কোনো বাধ্যবাধকতাতেও কাঁপেনি তার বুক। তিনি বলেন, ‘আমার ক্যারিয়ার নিয়ে ভাবি না। হয়ত অনেক শক্ত কথা বলেছি। কিন্তু আমার দেশকে আগামী ১০-১৫ বছর সার্ভিস দেবে যে ছেলেটি, এখন তার পাশে না দাঁড়াতে পারলে আর কিসের অধিনায়ক হলাম! এই অবিচার মানতে পারছি না।’
সংবাদ সম্মেলনের শুরু থেকেই মাশরাফির কণ্ঠ ছিল ভার। কথা বলতে বলতে যেন থেমে যাচ্ছিলেন। আগের দিন ব্যাঙ্গালুরুতে যে উচ্ছ্বাস আর উদ্দীপনা নিয়ে অনুশীলন শুরু করেছিল তার সবটুকু মিলিয়ে গেছে বিকাল গড়াতেই। আইসিসি নিষিদ্ধ করেছে সানি ও তাসকিনকে। স্পিনার হওয়ায় সানির  বোলিং অ্যাকশনে সমস্যা থাকতে পারে। তাই বলে তাসকিনের বোলিংয়ে সমস্যা! আইসিসি যে ব্যাখ্যা দিয়েছে তাতে বলা হয় তার কয়েকটি ডেলিভারিতে সমস্যা পেয়েছে তারা। কিন্তু ভারতের বিপক্ষে ২০১৪ সালে ওয়ানডে অভিষেকে রেকর্ড করা তাসকিন আরও ১৩টি ম্যাচ খেলেছে। সেই সঙ্গে সদ্য সমাপ্ত এশিয়াকাপসহ ১৩টি টি- টোয়েন্টি ম্যাচও খেলেছে। কিন্তু এতদিন কোনো আম্পায়ারের চোখেই পড়েনি তার বোলিং অ্যাকশনের সমস্যা। তাই হঠাৎ বিশ্বকাপে এমন ঘটনা অবিচার ছাড়া আর কোনো কিছুই বলা যায় না। অধিনায়ক মাশরাফিও এমন সিদ্ধান্তকে বলেছেন সরাসরি অবিচার। তাই তাসকিনের জন্য তিনি ন্যায় বিচার চেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন ঠিক আছে। আমরা আমাদের বলাটা বিসিবিকে বলতে পারি, বিসিবি যেভাবেই হোক আইসিসির সঙ্গে এটা নিয়ে আলোচনা করবে। আইসিসি সবসময় তরুণ ক্রিকেটারদের উৎসাহিত করে। এই মুহূর্তে আশা করছি তাসকিন ন্যায্য বিচার পাবে।’
আগের দিন এই সংবাদ পাওয়ার পর দল ভেঙ্গে পড়ে ভীষণ ভাবে। গতকাল তাদের অনুুশীলনেও সেই হতাশা স্পষ্ট। দলের মানসিক অবস্থা প্রসঙ্গে অধিনায়ক বলেন, ‘ঘরের দুইজন ছেলের যদি সমস্যা হয়, আপনি যে কোনো কাজই ভালোভাবে করতে পারবেন না। সেই উদ্যমটা আর পাবেন না।  আমাদের কাছে জিনিসটা এখন ওই রকম। আমাদের মানসিক অবস্থা এখন সেই রকম নেই। সবাই দেখলেই বুঝতে পারবেন। কিন্তু আমরা অবশ্যই মাঠে নামবো, যতটুকু স্পিরিট নিয়ে এর আগের ম্যাচে আমরা নেমেছিলাম।’ সানির নিষেধাজ্ঞাটা দল গ্রহণ করতে পারলেও তাসকিনের বিষয়টা মেনে নেয়া অসম্ভব। তাই কয়েক দফা মিটিং করেছে ক্রিকেটাররা ও টিম ম্যানেজম্যান্ট।  কোড অব কন্ডাক্টের কথা ভেবে শেষ পর্যন্ত বিসিবির ওপরই দায়িত্বটি ছেড়ে দিয়েছেন ক্রিকেটাররা। মাশরাফি বলেন, ‘বোর্ডের কাছে আমরা আমাদের জায়গাটা পরিষ্কার করেছি। বোর্ড আইসিসির সঙ্গে আলোচনা করুক। আমরা চাই, আমাদের ক্রিকেটার ন্যায়বিচার পাক। তাসকিনের অ্যাকশনে কোনো সমস্যা নেই,  বোর্ড এটা পরিষ্কার করুক। বোর্ডকে বাদ দিয়ে আমরা কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। আমাদের চাওয়া, বোর্ডই উদ্যোগ নিক।’ সঙ্গে তাসকিনের বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষার ধরন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘যে ম্যাচটার সঙ্গে মিলিয়ে পরীক্ষা  নেয়া হয়েছে, তাসকিনের সেই ম্যাচের একটি বলও অবৈধ ছিল না! এখন প্রশ্ন হলো, যে ম্যাচে অবৈধ বোলিং করেনি, তাকে কিভাবে সাসপেন্ড করা সম্ভব! কথা হচ্ছে, তার বোলিং পরীক্ষার সময় কিছু সমস্যা ছিল। কিন্তু তার ইয়র্কারে সমস্যা ছিল না, লেন্থ বলে সমস্যা ছিল না। ২-৩টি বাউন্সারে সমস্যা ছিল বলেছে। তাহলে অনেক বোলারকেই তো বলেছে যে, তারা বাউন্সার করতে পারবে না, দুসরা করতে পারবে না। সেরকম কিছু তো বলেনি! যে ম্যাচটা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে, সেই ম্যাচে বাউন্সারই করেনি সে। তাহলে কেন পরীক্ষায় ডাকা হলো?’
ধর্মশালাতে বাছাই পর্বে দারুণ খেলে সুপার টেনে উঠেছে বাংলাদেশ দল। কিন্তু পাকিস্তানের বিপক্ষে মূল পর্বে প্রথম ম্যাচটি হেরে যাওয়াতে শেষ তিনটি ম্যাচে দলের জন্য ছিল কঠিন চ্যালেঞ্জ। আজ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা। দুদিন পর প্রতিপক্ষ ভারত। শেষ প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। কিন্তু তার আগে দলের পরীক্ষিত দুজন সদস্যকে হারানো বড় ধাক্কা ছাড়া কিছুই নয়। তবে মাশরাফি বিশ্বাস করেন  দেশের মানুষ তাদের পাশে থাকবেন। তিনি বলেন, ‘কঠিন সময় তো অবশ্যই। আর ওরা থাকলেও যে কঠিন সময় আসতো না এটা বলা যাবে না। বিষয়টা হচ্ছে, এমন একটা সময় আমরা ধাক্কা খেলাম। আমাদের জন্য এটা ম্যানেজ করা কঠিন হয়ে পড়েছে। দুইজন খেলোয়াড়কে আমরা দুইদিন আগে পেলেও ম্যানেজ করে ফেলতে পারতাম। এমন একটা সময়ে নিউজটা এসেছে। তারা  সকালে ফ্লাইটে নেমে এখন অনুশীলন করতে এসেছে।  সবকিছু মিলিয়ে এটা ম্যানেজ করা কঠিন হয়ে গেছে। এর থেকে কঠিন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের মানুষ আমাদের পাশে আছে এবং থাকবে জানি। আমরাও চেষ্টা করবো ফিডব্যাকটা যেন আমাদের থেকেও সেইরকম হয়। তবে কাজটা অবশ্যই কঠিন।’
চারদিকে ক্ষোভ, বিসিবির আপিল
ক্রিকেটের এক বোদ্ধা ধারাভাষ্যকার বার্তা সংস্থা বিবিসিকে বললেন, ‘তিন মোড়ল (ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড) দলের কোনো বোলারকে নিয়ে প্রশ্ন উঠতে দেখা যায় না। কেবল বাংলাদেশ নয়,  ক্রিকেটের বাকি দেশগুলোর ক্ষেত্রে দেখছি ভিন্নচিত্র।’ আর গতকাল দিনভর যোগাযোগমাধ্যমে ঝরলো ক্রিকেটের ভক্ত-সমর্থকদের ক্ষোভ। চেন্নাইর রামাচন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাগারের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠতে দেখা গেছে আগে। আর এবার এখানে বাংলাদেশি পেসার তাসকিন আহমেদের পরীক্ষা প্রক্রিয়া নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।
গত ১৫ই মার্চ চেন্নাইয়ে বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষা দিতে যান তাসকিন আহমেদ। আর মাত্র চার দিনের মাথায় ফল জানিয়ে দেয়া হয়। এতে বলা হয়, তাসকিন আহমেদের বোলিং অ্যাকশন অবৈধ। তবে তার বোলিংয়ে কী ত্রুটি পাওয়া গেছে সে বিষয়ে বিশদ জানানো হয়নি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) এ সংক্রান্ত প্রেস বার্তায়। তবে তাসকিন আহমেদের নিষেধাজ্ঞার বিপরীতে আপিল শেষে গতকাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) জবাবের অপেক্ষায় ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। গতকাল বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের আগেই তাসকিনের বিষয়ে সুখবর শুনতে চাই আমরা। আর এ নিয়ে জোর তৎপরতা চালাচ্ছে বিসিবি। শনিবার তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানিকে নিষিদ্ধ ঘোষণার পর থেকেই আইসিসির শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছে বিসিবি। আইসিসি সভাপতি শশাঙ্ক মনোহর, প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসন ও সংস্থার প্রধান আইন কর্মকর্তার সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেন বিসিবি কর্তারা। গতকাল নাজমুল হাসান বলেন, আমাদের দুজন বোলারের অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কিন্তু তাসকিনের রিপোর্টের সঙ্গে আমরা একমত নই। আমি যতদূর জানি তারা (আইসিসি) বিষয়টি নিয়ে জরুরি বৈঠক করছেন। আশা করি ইতিবাচক খবর পাবো।
গতকাল দুপুরে পেসার তাসকিন আহমেদের নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আবেদন করা হয়েছে বলে জানায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। গুলশানে সংবাদমাধ্যমকে এ খবর জানান বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। বৈঠক শেষে বিসিবি সভাপতি বলেন, বোর্ডের সভায় তাসকিনের নিষেধাজ্ঞার বিপরীতে আপিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আশা করছি তারা (আইসিসি) বিষয়টি ভালোভাবে বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত দেবেন। এর আগে  বোর্ডের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। আর  বোর্ডের আইনজীবীদের পরামর্শেই তাসকিনের নিষেধাজ্ঞা পুনর্বিবেচনার আবেদনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পুনর্বিবেচনার আবেদন গৃহীত না হলে আইসিসির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপের চিন্তাভাবনা করছে বিসিবি।
গতকাল সকালে যথাসময়ে মাঠে অনুশীলনে যোগ দেন টাইগাররা। যথারীতি শুরুতেই খেলোয়াড়দের পাশে হাজির কোচ চন্দ্রিকা হাথুরুসিংহে। কিন্তু অনুশীলনে বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়-কোচের বিষণ্নতাও ছিল স্পষ্ট। ব্যাঙ্গালুরু থেকে মানবজমিনের প্রতিবেদক জানান, সাধারণত অনুশীলনের একদম শুরুতেই ব্যাট হাতে খেলোয়াড়দের সঙ্গে ব্যস্ত হয়ে পড়েন কোচ হাথুরুসিংহে। কিন্তু রোববার অনেকটা সময় তিনি মাঠের একপাশে চেয়ারে বিষণ্ন মুখে বসে ছিলেন। ঢাকা থেকে ইতিমধ্যে ব্যাঙ্গালুরুতে উড়ে গেছেন সাকলাইন সজীব ও শুভাগত হোম চৌধুরী। গতকাল অনুশীলনে দলের সঙ্গে যোগ দেন এ দুই ক্রিকেটার। আজ দেশে ফেরার কথা তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানির।
চেন্নাইয়ে ১৫ই মার্চের পরীক্ষায় মাত্র ৩-৪ মিনিটের মধ্যে তাসকিনকে ৮-৯টি বাউন্সার দিতে বলা হয়। এর মধ্যে তাসকিনের তিনটি বাউন্সারে খুঁত পায় আইসিসি। এত অল্প সময়ে এতগুলো বাউন্সার দিতে হলে এরকম হওয়াটা অস্বাভাবিকও নয়। মূলত এই পরীক্ষার ফলের ওপর ভিত্তি করেই তাসকিনের বোলিং নিষিদ্ধ ঘোষণা করে আইসিসি। কিন্তু নিয়ম হলো, ম্যাচের যে ডেলিভারিতে অ্যাকশন সন্দেহজনক মনে হয়েছে, পরীক্ষায় সেটাই করতে বলা হবে বোলারকে। সে অনুযায়ী পরীক্ষায় তাসকিনকে বাউন্সার দিতে বলার কথা নয়। চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে  নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে তাসকিনের বোলিং অ্যাকশনে সন্দেহ জানিয়ে রিপোর্ট করেন মাঠের দুই আম্পায়ার। কিন্তু ওই ম্যাচে তাসকিন কোনো বাউন্সারই দেননি। বাউন্সারে তাসকিনের অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ ওঠারও তাই অবকাশ ছিল না ওই ম্যাচে। আইসিসির সিদ্ধান্তে নিয়মের ব্যত্যয় রয়েছে আরও। ‘স্টক ডেলিভারি’ ছাড়া অন্য কোনো  ডেলিভারিতে কনুই ১৫ ডিগ্রির বেশি বাঁকা হলেও আইসিসি কোনো বোলারের বোলিং নিষিদ্ধ করতে পারে না বলে। এক্ষেত্রে বিধি অনুযায়ী আইসিসি ওই বোলারকে শুধু ভবিষ্যতের জন্য সতর্কই করতে পারে। তাসকিনের অ্যাকশন নিয়ে অভিযোগ তার গুড লেন্থ অথবা ইয়র্কার বলগুলোর মতো ‘স্টক  ডেলিভারি’তে নয় বলেও তার বোলিংয়ের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে প্রশ্ন তোলা যায়।  তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন ওঠার পর আইনজীবীদের শরণাপন্ন হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আম্পায়ারদের আনা অভিযোগ, রামাচন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাগারে হওয়া তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন পরীক্ষা এবং তড়িঘড়ি আইসিসির চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের যথার্থতা বিবেচনা করে দেখছেন আইনজীবীরা।-ডেস্ক

নিউজট শেয়ার করুন..

এই ক্যাটাগরির আরো খবর