(দিনাজপুর২৪.কম) করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় ভারতজুড়ে চলছে লকডাউন। বিনোদন জগতের অনেক তারকাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে সচেতনতা বৃদ্ধি ও সঙ্কট মোকাবিলায় কাজ করছেন। এরমধ্যে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নার্সের ভূমিকায় প্রত্যক্ষভাবে করোনা রোগীদের সেবা করার ব্যতিক্রমী দুঃসাহস দেখিয়েছেন এক বলিউড অভিনেত্রী।

প্রচণ্ড ছোঁয়াচে করোনা ভাইরাসজনিত রোগে আক্রান্তদের সেবা না দিয়ে আত্মরক্ষায় অনেক ডাক্তার-নার্সের সেল্ফ কোয়ারেন্টিনে চলে যাওয়ার খবর শোনা গেছে এতদিন। এই প্রথম ব্যতিক্রমী একটি ঘটনা দেখা গেল। লকডাউনে একজন অভিনেত্রী ঘরে বসে না থেকে নার্স হিসেবে করোনা রোগীদের সেবা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আর তার সিদ্ধান্তে রীতিমতো আলোড়ন পড়েছে সামাজিক মাধ্যমে। তিনি বলিউড অভিনেত্রী শিখা মালহোত্রা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম থেকে জানা যায়, মুম্বাইয়ের যোগেশ্বরীর বালাসাহেব ঠাকুর ট্রমা সেন্টার হাসপাতালে রোগীদের সেবায় দেখা যাচ্ছে এখন শিখাকে।

এর আগে তাকে দেখা গিয়েছে শাহরুখ খানের ‘ফ্যান’ ছবিতে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে মুক্তি পাওয়া ছবি ‘‌কাঁচলি’ তেও তিনি অভিনয় করেছেন।‌ ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে শিখা জানিয়েছেন, করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবায় নিজেকে নিযুক্ত করেছেন। কারো কোনো প্রয়োজন হলে নিঃসংকোচে তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।‌ তিনি এই কাজে তাদের ঝাঁপিয়ে পড়তে বলেছেন যাদের নার্সিংয়ে প্রশিক্ষণ রয়েছে।

নোভেল করোনাভাইরাস বা কোভিড–১৯ সারা বিশ্বের কাছেই অজ্ঞাত এক মহামারী। প্রতিদিন এই সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। এই তথ্যকে সামনে রেখে শিখা জানিয়েছেন, সেবা কর্মের শিক্ষা নিয়ে এই মুহূর্তে তার পক্ষে ঘরে থাকা মানে দেশের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করা। এই মুহূর্তে দেশে স্বাস্থ্যকর্মীর বড় অভাব। আমি একজন বিনোদনকর্মী হিসেবে আমার কাজ করেছি। এবার সময় হয়েছে স্বাস্থ্যকর্মী হিসেবে দেশের সেবা করা। তিনি যেন এই কাজে সফল হন তার জন্য সবার আশীর্বাদ চেয়েছেন।

প্রসঙ্গত, বলিউডে অভিষেকের আগে শিখা দিল্লির বর্ধমান মহাবীর হাসপাতাল থেকে নার্সিংয়ে স্নাতক পর্যায়ের পড়াশোনা করেছেন। সফদরজং হাসপাতালের সঙ্গে যুক্তও ছিলেন। -ডেস্ক