স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) আজ বৃহস্পতিবার দিনাজপুর শহরের বাহাদুর বাজারে যেন ঈদের বাজার চলছে। মরণব্যাধী করোনা ভাইরাসের ভয় নেই জনমনে। গাঁ ঘেঁষে করছেন বাজার। স্থানীয় জেলা প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নির্দিষ্ট জায়গা গোল চিহ্ন এঁকে দিলেও জনসাধারণ তা একেবারে মানছেন না। বৃহস্পতিবার সকালের চিত্র দেখে অনেকেই বলছেন এ যেন ঈদের বাজার শুরু হয়েছে। তবে বৃহস্পতিবার স্থানীয় ভাবে প্রশাসনের কাউকে টহল দিতে দেখা যায়নি। ফলে জনসাধারণ আরো বে-পরোয়া হয়ে উঠেছে।
এদিকে গত দুই দিন আগে সকাল থেকে দুপুর ১টার পর কাঁচা বাজার বন্ধ রাখছে ব্যবসায়ীরা। দিনাজপুরে সুধী মহল মনে করছেন যেভাবে করে সকাল থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত মানুষের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ করা যাচ্ছে দিনাজপুরে করোনা ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। এদিকে পাল্লা দিয়ে অটোবাইক, মটর সাইকেলের প্রচন্ড ভিড়। ভিড়ের কারণে মানুষ রাস্তা পারাপার করতে পারছে না। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে বখাটেরা সরকারি নির্দেশকে অমান্য করে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে। বেশ কিছু স্থানে কাপড়ের দোকান সহ অন্যান্য দোকানও খোলা রাখছেন।
গত পরশু বিরামপুর উপজেলায় করোনা উপসর্গ নিয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হলেও টনক নড়েনি দিনাজপুরবাসীর। সুধী মহল দিনাজপুরে করোনা ভাইরাস সংক্রমনরোধে সেনাবাহিনী ও স্থানীয় সরকারকে বিষয়টি গুরুত্ব দিতে জোর দাবি তুলেছেন।
সবচেয়ে খারাপ খবর হলো দুটি সরকারি হাসপাতাল এবং বেসরকারি কয়েকটি হাসপাতাল এবং ক্লিনিকে ডাক্তার নেই! কোথায় চিকিৎসা সেবা পাবে তারা। বিপাকে রোগীরা। অভিযোগ করছেন ডাক্তার নেই। সুধী মহলেরা বলছেন, ডাক্তারা যেন গা ঢাকা দিয়েছে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ডাক্তাররা কেন সেবা দিচ্ছেন না এ নিয়ে ধু¤্রজালের সৃষ্টি হয়েছে।