(দিনাজপুর২৪.কম) এ মুহূর্তে বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের মনে দুটিই কৌতূহলি জিজ্ঞাসা; এক- টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর। তিন ম্যাচের আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের সূচি কী?

কবে কোথায় কোন ম্যাচ? আর দুই- সাকিব আল হাসান কবে দেশে ফিরবেন? কোথায় কীভাবে অনুশীলন করবেন এবং ঐ তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে আদৌ তার ফেরা হবে কি না, হলে কোন টেস্টে তাকে পাবে টাইগাররা?

এসব কৌতূহলি প্রশ্নের জট খোলেনি এখনও। শ্রীলঙ্কায় মুমিনুলের দল তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে, এটা নিশ্চিত। সে লক্ষ্যে প্রাক-প্রস্তুতি চলছে।

ক্রিকেটার নির্বাচনের কাজ শুরু হয়ে গেছে। কতজনের দল পাঠানো হবে? তারা কবে থেকে দেশে অনুশীলন করবেন এবং কবে এইচপি বহর নিয়ে কলম্বো যাবেন? তা নিয়ে কথাবার্তা হচ্ছে সংশ্লিষ্ট মহলে।

শেষ খবর, টাইগারদের শ্রীলঙ্কা যাত্রা বিলম্ব হবে ৪-৫ দিন। আগে ২৩ সেপ্টেম্বর যাওয়ার কথা থাকলেও ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান মঙ্গলবার জানিয়েছেন, যাত্রা কয়েকদিন পেছাতে পারে।

এখন ২৭-২৮ সেপ্টেম্বর কলম্বো যাওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। আর ১৪ সেপ্টেম্বরের বদলে ২১-২২ তারিখ থেকে অনুশীলন শুরুর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এর পাশাপাশি সাকিব ইস্যুতেও কথাবার্তা চলছে। সাকিবকে কীভাবে মাঠে ফেরানো যায়, সে নিয়ে আলোচনা-পর্যালোচনা চলছে।

বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, সাকিব নাকি দ্বিতীয় টেস্টেই মাঠে ফিরবেন। আগেই জানা, আগামী ২৯ অক্টোবর আইসিসি নিষেধাজ্ঞা মুক্ত হবেন সাকিব।

যদি পুরো পাঁচদিন খেলা হয়, তাহলে ২৪ অক্টোবর প্রথম টেস্ট শুরু হলে তা সাকিবের নিষেধাজ্ঞা মুক্তির ২৪ ঘন্টা আগেই শেষ হয়ে যাবে।

অর্থাৎ সাকিবের প্রথম টেস্ট খেলার প্রশ্নই আসে না। তাই বোর্ড সভাপতি তাকে দ্বিতীয় টেস্টে দলে পেতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

তবে সাকিব ইস্যুতে সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হলো, কবে দেশে ফিরবেন সাকিব? সবার জানা, স্ত্রী ও সন্তানদের সঙ্গে সেই করোনা শুরুর পর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন সাকিব।

মাঝে শোনা গেছিল, ক্রিকেটীয় সুযোগ সুবিধা বেশি ও অনুশীলন করার পরিবেশ তুলনামূলক ভালো- তাই সাকিব আমেরিকা ছেড়ে লন্ডনে প্র্যাকটিস করবেন।

তবে শেষপর্যন্ত এ খবর অসাঢ় প্রমাণিত হয়েছে। সাকিব এখনও যুক্তরাষ্ট্রে আছেন এবং যতদুর জানা গেছে সেখান থেকেই দেশে ফিরবেন।

সেই ফেরা নিয়েও আছে খানিক বিভ্রান্তি ও তথ্যবিভ্রাট। কেউ কেউ বলছেন, এ মাসের শেষদিকেই আমেরিকা থেকে দেশে ফেরত আসছেন সাকিব।

মাঝে তার বিকেএসপির শিক্ষক নাজমুল আবেদিন ফাহিমও এমন কথাই বলেছেন। এমনকি বিসিবি সভাপতিও জানিয়েছেন, সাকিব আগস্ট মাসেই দেশে ফেরত আসবেন এবং বিকেএসপিতে অন্তত ১৫ দিনের অনুশীলন করবেন।

কিন্তু এখন শোনা গেল ভিন্ন তথ্য। যিনি সাকিব, তামিমসহ দেশি-বিদেশি ক্রিকেটার, কোচ, কোচিং স্টাফ ও ক্রিকেটীয় ব্যক্তিত্বদের বিমানবন্দরে বিদায় দেয়া ও অভ্যর্থনা জানানোর কাজটি বেশ আন্তরিকতা ও বিশ্বস্ততার সঙ্গে পালন করেন, সেই ক্রিকেটাঙ্গনের চেনা মুখ ওয়াসিম খান জানালেন, ‘আগস্ট নয়, সাকিব সম্ভবত সেপ্টেম্বরের প্রথম দিকে দেশে ফিরবেন।’

সাকিবের সঙ্গে মাঝেমধ্যেই কথা হয় তার। এই তো দিন পাঁচেক আগে সাকিবের মা গেছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তাকে বিদায় জানাতে এবং বিমানবন্দরের প্রয়োজনীয় ও অত্যাবশ্যকীয় কাজ সম্পাদনে সহযোগিতা করতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে উপস্থিত ছিলেন ওয়াসিম খান।

এ তথ্য দিয়ে ওয়াসিম খান জানালেন, ‘আমার সঙ্গে সাকিবের যতটা কথা হয়েছে, তাতে সাকিব জানিয়েছে সে সেপ্টেম্বরে দেশে আসবে।’ -ডেস্ক