(দিনাজপুর২৪.কম) বেশিরভাগ মানুষ মনে করেন, বাড়িতেই নিয়মিত কান পরিষ্কার করা উচিত। আর কটন বাডই কান পরিষ্কারের সবচেয়ে নিরাপদ ও নির্ভরযোগ্য উপায়। তবে গবেষণা বলছে, এতে উপকারের চেয়ে ক্ষতিই বেশি হয়। কটন বাড ব্যবহারের ফলে কানে সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে। আর বহুদিন ধরে এটি ব্যবহার করলে ছত্রাক সংক্রমণও হতে পারে। আবার অনেকসময় কটন বাডের তুলোর খানিকটা অংশ কানে আটকে থেকে বিপদ বাড়ায়।

এমন আরো অনেক ক্ষতিকর দিক আছে কানে কটন বাড ব্যবহারের। আসুন জেনে নেই সেগুলো সম্পর্কে।

১. আঘাত লাগলে কানের পর্দা ফেটে যাওয়ারও আশঙ্কা থাকে।

২. কটন বাড ব্যবহারের ফলে কানের ভিতরের ময়লা আরও বেশি ভিতরে ঢুকে যায়।

৩. কানের পর্দার আরও কাছে পৌছে যায় ময়লা।

৪. কানে ক্ষত সৃষ্টির আশঙ্কা অনেক বেড়ে যায়।

৫. কানের হাড় ভেঙে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে।

৬. নষ্ট হয়ে যেতে পারে শরীরের ভারসাম্য।

৭. কানের মধ্যে থেকে যতটা না ময়লা বের হয়, তার চেয়ে বেশি ভিতরেই থেকে যায়।

৮. শোনার ক্ষমতা হারানোর সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।

প্রসঙ্গত, কানের ময়লা সাধারণত বিশেষ কারণ ছাড়া আলাদাভাবে পরিষ্কার করার প্রয়োজন পড়ে না। প্রাকৃতিকভাবেই কানের ময়লা বেরিয়ে আসে। প্রয়োজন হলে কান পরিষ্কারের জন্য ডাক্তারের কাছেই যাওয়া উচিত বলে মত দিয়েছেন গবেষণারা। -ডেস্ক