(দিনাজপুর২৪.কম) ময়মনসিংহের নান্দাইল মডেল থানার ওসির কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগে ছাত্রলীগের ৪ নেতাকে আটক করা হয়েছে।  রোববার দুপুরে থানায় চাঁদা আনতে গেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদকসহ চারজনকে আটক করা হয়।  পুলিশ জানায়, সম্প্রতি নান্দাইল উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে। সেই কমিটির সাধারণ সম্পাদক ওহেদুল ইসলাম ফয়সাল ওসি মো. কামরুল ইসলাম মিয়ার সরকারি নাম্বারে ফোন করে ২০ হাজার টাকা চাঁদা চান। পরক্ষণেই তা বাড়িয়ে ২ লাখ টাকা দাবি করা হয়। সেই টাকা আনার জন্য রোববার থানায় যান উপজেলা ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি রাজু আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল হাসান রয়েল, পৌর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি টিটু চন্দ্র দে ও কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য মো. কামরুল ইসলাম। পরে থানার ওসি তাদের আটক করেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আটকৃতদের ময়মনসিংহ পুলিশ সুপারের দফতরে নিয়ে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গৌরীপুর সার্কেল) সাখের হোসেন সিদ্দিকী।

নান্দাইল উপজেলা ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সধারণ সম্পাদক ওহেদুল ইসলাম ফয়সাল বলেন, তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন। কাউকে থানায় তিনি পাঠাননি।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় এমপির রাজনীতির কৌশল দেখে তিনি রাজনীতি থেকে দূরে রয়েছেন। নিজের ব্যবসা বাণিজ্য নিয়ে ব্যস্ত আছেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাখের হোসেন সিদ্দিকী বলেন, নান্দাইল উপজেলা ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কিমিটির সাধারণ সম্পাদক ওহেদুল ইসলাম ফয়সাল রোববার সকালে ওসির সরকারি মুঠোফোন নাম্বারে ফোন করে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। কয়েক দফা ফোন দিয়ে তা বাড়িয়ে ২ লাখ টাকা চাওয়া হয়। পরে চাঁদা নেওয়ার জন্য দুপুরে থানায় পাঠানো চারজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। -ডেস্ক