(দিনাজপুর২৪.কম) নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বে সম্মিলিত জাতীয় জোটের (ইউএনএ) আত্মপ্রকাশ হয়েছে।
আজ রবিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে নতুন এ রাজনৈতিক জোটের ঘোষণা দেন এরশাদ।
জোটে রয়েছে আল্লামা এমএম মান্নানের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, আলহাজ্ব আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুকের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ইসলামী মহাজোট এবং সেকান্দার আলী মনির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ জাতীয় জোট।
এরশাদ বলেন, ‘দেশ ও জাতির প্রয়োজনে এবং আধুনিক বাংলাদেশ গড়তে আজ একটি বৃহত্তর রাজনৈতিক জোট গঠনের ঘোষণা দিচ্ছি। অনেকে আমার আহ্বানে সাড়া দিয়ে ইতোমধ্যে এগিয়ে এসেছেন। জোট গঠনের পর আরো কেউ অন্তর্ভুক্ত হতে চাইলে বিবেচনা করা হবে।’
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জানান, তিনি ছাড়াও ইসলামিক ফ্রন্টের চেয়ারম্যান এমএ মান্নান, জাতীয় ইসলামী মহাজোটের চেয়ারম্যান আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুক এবং বাংলাদেশ জাতীয় জোটের (বিএনএ) চেয়ারম্যান সেকান্দার আলী মনি নতুন জোটের ঘোষণাপত্রে স্বাক্ষর করেছেন।
এই জোটে যোগ দেয়ার বিষয়ে আরও দুটি নিবন্ধিত দলের সঙ্গে ‘কয়েক দফা’ বৈঠক করার কথা বললেও দলগুলোর নাম জানাননি এরশাদ।
এরশাদ বলেন, ‘তারা জোটে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। তাদের দলীয় ফোরামে আলোচনা করে আমাদের জানালে সুবিধামত সময়ে জোটে অন্তর্ভুক্ত করা যাবে বলে আশা করছি।’
জোটের লক্ষ্য ও উদ্দেশে বলা হয়েছে, জোটগতভাবে জাতীয় নির্বাচনসহ সকল পর্যায়ের নির্বাচনে অংশগ্রহণ এবং জোটগতভাবে সরকার গঠন করে দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা, সমাজে ন্যায় বিচার ও সু-শাসন নিশ্চিত করা এবং উন্নয়নের ধারা প্রবর্তন করে সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তোলা।
জোটের মৌলিক আদর্শে বলা হয়েছে, ইসলামী মূল্যবোধ তথা সকল ধর্মীয় মূল্যবোধের প্রতি সমান চেতনা প্রদর্শন, স্বাধীনতার চেতনা এবং বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদের ভিত্তিতে রাষ্ট্রীয় ও সামাজিক জীবনবোধ নিশ্চিত করা।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান আল্লামা এমএম মান্নান, জাতীয় ইসলামী মহাজোটের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুক, বাংলাদেশ জাতীয় জোটের  চেয়ারম্যান সেকান্দার আলী মনি ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার। -ডেস্ক