(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুর সদরের ৮নং শংকরপুর ইউনিয়নের পূর্ব মোহনপুর এলাকায় গত ২৭ মার্চ সুপারি পাড়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে মারামারির সৃষ্টি হয়। রুহুল আমিন তার পৈত্রিক সম্পত্তিতে কিছু সুপারির গাছ লাগায়। সে গাছগুলিতে প্রচুর পরিমাণে সুপারি ধরে। ২৭ মার্চ সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে রুহুল আমিন সেই সুপারি গাছগুলো থেকে সুপারি পাড়া শুরু করলে সেখানে এলাকার সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু ও জিনের বাদশা নামে খ্যাত ওহাব ও তার পুত্র ইকবাল এসে রুহুল আমিনকে সুপারি পাড়তে বাধা প্রদান করলে এক পর্যায়ে ওহাব ও ইকবাল রুহুল আমিনকে বেধরক মারপিট করে। ঐ সময় অসহায় প্রতিবন্ধী বেপাগলী ঐ রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় সুপারি রাস্তায় পড়ে থাকা দেখে সে সুপারিগুলো কুড়াতে থাকে এবং একটি জায়গায় সুপারি জড়ো করে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু ও জিনের বাদশা নামে খ্যাত ওহাব ও তার পুত্র ইকবাল বেপাগলী সুপারি কুড়াতে দেখে তাকে ধরে মাথা নিচে পা উপর করে রোডের মধ্যে আছাড় মারে। প্রতিবন্ধী বেপাগলীর মাথা থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হতে থাকে এবং সেখানেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে সে অজ্ঞান অবস্থায় মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শী চা ব্যবসায়ী তরিকুল ইসলাম জানায়, সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যু ও জিনের বাদশা নামে খ্যাত ওহাব ও তার পুত্র ইকবাল এলাকায় সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। তারা কাউকেউ তোয়াক্কা করে না। তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট জোরালো দাবী কামনা করছেন এলাকাবাসী।