1. dinajpur24@gmail.com : admin :
  2. erwinhigh@hidebox.org : adriannenaumann :
  3. dinajpur24@gmail.com : akashpcs :
  4. AnnelieseTheissen@final.intained.com : anneliesea57 :
  5. maximohaller896@gay.theworkpc.com : betseyhugh03 :
  6. BorisDerham@join.dobunny.com : borisderham86 :
  7. self@unliwalk.biz : brandymcguinness :
  8. ChristineTrent91@basic.intained.com : christinetrent4 :
  9. CorinneFenston29@join.dobunny.com : corinnefenston5 :
  10. rosettaogren3451@dvd.dns-cloud.net : darrinsmalley71 :
  11. Dinah_Pirkle28@lovemail.top : dinahpirkle35 :
  12. emmie@a.get-bitcoins.online : earnestinemachad :
  13. nikastratshologin@mail.ru : eltonmcphee741 :
  14. EugeniaYancey97@join.dobunny.com : eugeniayancey33 :
  15. vandagullettezqsl@yahoo.com : gastonsugerman9 :
  16. panasovichruslan@mail.ru : grovery008783152 :
  17. cruz.sill.u.s.t.ra.t.eo91.811.4@gmail.com : howardb00686322 :
  18. Kristal-Rhoden26@shoturl.top : kristalrhoden50 :
  19. azegovvasudev@mail.ru : latricebohr8 :
  20. jarrodworsnop@photo-impact.eu : lettie0112 :
  21. cruz.sill.u.strate.o.9.18.114@gmail.com : lonnaaubry38 :
  22. lupachewdmitrij1996@mail.ru : maisiemares7 :
  23. corinehockensmith409@gay.theworkpc.com : meaganfeldman5 :
  24. kenmacdonald@hidebox.org : moset2566069 :
  25. news@dinajpur24.com : nalam :
  26. marianne@e.linklist.club : noblestepp6504 :
  27. NonaShenton@miss.kellergy.com : nonashenton3144 :
  28. armandowray@freundin.ru : normamedlock :
  29. rubyfdb1f@mail.ru : paulinajarman2 :
  30. vaughnfrodsham2412@456.dns-cloud.net : reneseward95 :
  31. Roosevelt_Fontenot@speaker.buypbn.com : rooseveltfonteno :
  32. kileycarroll1665@m.bengira.com : sabinechampion :
  33. Sonya.Hite@g.dietingadvise.club : sonya48q5311114 :
  34. gorizontowrostislaw@mail.ru : spencer0759 :
  35. jcsuave@yahoo.com : vaniabarkley :
  36. online@the-nail-gallery-mallorca.com : zoebartels80876 :
বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ১১:৪৫ অপরাহ্ন
ভর্তি বিজ্ঞপ্তি :
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত "বাংলাদেশ কারিগরি প্রশিক্ষণ ও অগ্রগতি কেন্দ্র" এর দিনাজপুর সহ সকল শাখায়  RMP, LMAFP. L.V.P,  Paramedical, D.M.A, Nursing, Dental পল্লী চিকিৎসক কোর্সে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ভর্তির শেষ তারিখ ২৫/১১/২০১৯ বিস্তারিত www.bttdc.org ওয়েব সাইটে দেখুন। প্রয়োজনে-০১৭১৫৪৬৪৫৫৯

এটিএম বুথ থেকে চুরি নেপথ্যে বিদেশি চক্র

  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬
  • ১ বার পঠিত

(দিনাজপুর২৪.কম) বিভিন্ন বেসরকারি ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে ‘স্কিমিং ডিভাইস’-এর মাধ্যমে গ্রাহকদের ডেবিট কার্ড ডাটা সংগ্রহ করে টাকা চুরির ঘটনায় বিদেশি চক্র জড়িত বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে। যেসব বুথ থেকে টাকা চুরি হয়েছে পুলিশ ইতিমধ্যে সেসব বুথ থেকে টাকা উত্তোলনকারীর ছবি ও সিসিটিভি ক্যামেরায় ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। এতে টাকা উত্তোলনকারী হিসেবে একাধিক বিদেশি নাগরিককে দেখা গেছে। পুলিশ কর্মকর্তারা ধারণা করছেন, বিদেশি কোনো সংঘবদ্ধ চক্র টাকা চুরির ঘটনায় জড়িত। তাদের শনাক্ত ও গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। বিদেশি এসব নাগরিক যাতে দেশ ত্যাগ করতে না পারে সেজন্য তাদের ছবি বিভিন্ন স্থল ও আকাশপথের ইমিগ্রেশন কার্যালয়ে পাঠিয়ে দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। এদিকে টাকা চুরির একাধিক ঘটনার পর বেসরকারি ব্যাংকগুলো আন্তঃব্যাংক এটিএম বুথে লেনদেন বন্ধ করে দিয়েছে। ব্যাংকগুলোর পক্ষ থেকে তাদের গ্রাহকদের নিজ নিজ ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে টাকা উত্তোলনের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এছাড়া, পিন কোড ও পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের জন্যও অনুরোধ করা হয়েছে।
গত শুক্রবার রাজধানীর বনানী ও মিরপুর এলাকার বিভিন্ন বুথ থেকে কয়েকটি বেসরকারি ব্যাংকের টাকা খোয়া যায়। গ্রাহকের কাছে ডেবিট কার্ড ও পাসওয়ার্ড গচ্ছিত থাকলেও তাদের মোবাইল ম্যাসেজে টাকা উত্তোলন হওয়ার নোটিফিকেশন আসে। বিষয়টি নিয়ে ভুক্তভোগী গ্রাহকরা নিজ নিজ ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানালে বিষয়টি সবার নজরে আসে। পরে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পায়। এর প্রেক্ষিতে গত শুক্রবার ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড (ইউসিবিএল)-এর পক্ষ থেকে বনানী থানায় তথ্য-প্রযুক্তি আইন ও পেনালকোডের ধারায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। ইউসিবিএলের পক্ষে মামলাটি দায়ের করেন ব্যাংকের হেড অব ফ্রড কন্ট্রোল অ্যান্ড ডিসপুট ম্যানেজমেন্ট ও কার্ডস, ব্রাঞ্চেস কন্ট্রোল অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ডিভিশন কর্মকর্তা মাহবুব- উল ইসলাম খান।
মামলার তদন্ত তদারক কর্মকর্তা পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোস্তাক আহমদ বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কিছু তথ্য ও ছবি পাওয়া গেছে। সেগুলো আমলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ডিসি বলেন, ছবিতে বিদেশি নাগরিকের ছবি দেখা গেছে। এ কারণে এই চক্রটি বিদেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরা যাতে দেশ থেকে চলে যেতে না পারে সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এটিএম বুথ থেকে টাকা চুরির এই চক্রটি বিদেশি। সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে আফ্রিকান কোনো দেশের নাগরিক স্কিমিং ডিভাইসের মাধ্যমে ক্লোন কার্ড তৈরি করে তা দিয়ে টাকা তুলছে। তদন্ত সংশ্লিষ্টদের ধারণা, এই চক্রের সঙ্গে দেশীয় লোকজনও জড়িত বলে তারা ধারণা করছেন। প্রযুক্তি বিষয়ে দক্ষ এমন একজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান, স্কিমিং ডিভাইসটি এমন যে এটি কোনো বুথের কার্ড প্রবেশ করানো জায়গাটির ঠিক উপরে সেট করে রাখা হয়। এতে কিছু সার্কিটসহ ভিডিও ক্যামেরা ও ম্যাগনেটিক স্ট্রাইপে সংযুক্ত থাকে। যে কোনো কার্ড এটিএম বুথে প্রবেশ করানোর সময় ডিভাইসের ম্যাগনেটিক স্ট্রাইপের মাধ্যমে আলোক রশ্মির দ্বারা ওই কার্ডের যাবতীয় তথ্য স্ক্যান হয়ে যায়। আর ভিডিও ক্যামেরার মাধ্যমে গ্রাহকের পাসওয়ার্ড নম্বরটিও শনাক্ত করে নেয় ডিভাইসটি। পুরো তথ্য ছোট্ট একটি ইলেকট্রনিক্স চিপসে সংগৃহীত থাকে। পরে ওই ডিভাইস থেকে সংগৃহীত তথ্য দিয়ে প্রথমে ক্লোন বা নকল কার্ড তৈরি করা হয়। যা দিয়ে ভিডিও ক্যামেরায় পাওয়া পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে অনায়াসে টাকা উত্তোলন করা সম্ভব। গত শুক্রবার বনানী থানায় দায়েরকৃত মামলার অভিযোগেও বলা হয়, গত ৭ই ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টা ৪২ মিনিটে ইউসিবিএলের বনানী বুথে দুই ব্যক্তি বুথের সিকিউরিটি গার্ডকে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে। তারা জানায়, বুথে সমস্যার সমাধান করতে ব্যাংক থেকে এসেছেন তারা। বুথের ভেতরে প্রবেশ করে তারা স্কিমিং ডিভাইসটি লাগিয়ে দেয়। পরবর্তীতে তারা সেই ডিভাইস খুলে নেয়ার পর ক্লোন কার্ড তৈরি করে গ্রাহকের টাকা তুলে নিয়ে যায়। বনানীর ওই বুথ থেকে প্রাথমিক হিসেবে ১ লাখ ২৬ হাজার টাকা উত্তোলন করা হয়েছে। উত্তোলনকৃত টাকার পরিমাণ আরও বেশি হবে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।
গোয়েন্দা সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বছর দুয়েক আগে গোয়েন্দা পুলিশ ক্রেডিট কার্ড ও ডেবিট কার্ড জালিয়াতি করা একটি চক্রকে গ্রেপ্তার করেছিল। এরা কোনো না কোনোভাবে ব্যাংকের চাকরিজীবী ও কার্ড ডিভিশনে কাজ করেছিলেন। নতুন করে এটিএম বুথ থেকে টাকা চুরির ঘটনার পর আগে গ্রেপ্তার হওয়া চক্রটির বিষয়েও খোঁজখবর করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, বিদেশি চক্রের সঙ্গে ব্যাংক সংশ্লিষ্ট কেউ এর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে।
এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানিয়েছে, তাদের তদন্ত দল অনুসন্ধান করে জানতে পেরেছে গত শুক্রবার ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) অন্তত ২১ জন গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে আনুমানিক ১০ লাখ টাকা তুলে নেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভংকর সাহা বলেন, ‘ইবিএলের ঘটনা তদন্ত করে জানতে পেরেছি ৩ ব্যাংকের ৬টি এটিএম বুথে স্কিমিং মেশিন লাগিয়ে বেশকিছু কার্ডের ডাটা সংগ্রহ করা হয়েছে। এরপর ওই ডাটা দিয়ে কার্ড ক্লোনিং করা হয়েছে।’ তিনি বলেন, ৬ বুথে স্কিমিং মেশিন লাগানো অবস্থায় যেসব কার্ড ব্যবহার হয়েছিল সে গ্রাহকদের জানিয়ে ডিঅ্যাক্টিভেট করার পরামর্শ দিয়েছে। একই সঙ্গে তাদের নতুন কার্ড সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে। শুভঙ্কর সাহা জানান, কার্ড ক্লোনিং করে টাকা চুরির ঘটনা তদন্তে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ৩টি টিম কাজ শুরু করেছে। এ তদন্তের পরই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এক্ষেত্রে যে ব্যাংকের কারণে টাকা খোয়া গেছে সে ব্যাংকই গ্রাহককে ক্ষতিপূরণ দেবে। ভবিষ্যতে এ ধরনের অপরাধ ঠেকাতে কী পদক্ষেপ নেয়া হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘প্রত্যেকটা ব্যাংক যেন তাদের বুথগুলোর সিসিটিভি থেকে দিনে অন্তত একবার পরীক্ষা করে। কেউ সেখানে স্কিমিং মেশিন লাগালে সেটা জানা যাবে। পাশাপাশি এন্টি স্কিমিং ডিভাইস বাজারে পাওয়া যায় কিনা সেটাও খোঁজখবর করছি। তিনি বলেন, যারা এ ধরনের চুরির কাজ করে তারা বুথে প্রবেশের সময় সাধারণত মাথায় এমন ক্যাপ ব্যবহার করে যাতে করে ক্যামেরায় তার মুখ দেখা না যায়। আবার বুথের সামনে যে ক্যামেরা লাগানো থাকে তাও তারা চুইংগাম জাতীয় কিছু দিয়ে বন্ধ করে দেয়। আমরা চিন্তা করছি কেউ যখন কোনো ক্যামেরা ব্লক করার চেষ্টা করবে তখনই যাতে এলার্ম বেজে উঠে। তবে এ ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।
আন্তঃব্যাংক এটিএম লেনদেন বন্ধ
বাংলাদেশে সমপ্রতি কয়েকটি ব্যাংকের এটিএম কার্ড গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে জালিয়াতির মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ ওঠার পর দেশের বেশির ভাগ ব্যাংকই এটিএম বুথগুলো থেকে অন্য ব্যাংকের গ্রাহকদের সেবা দেয়া বন্ধ রেখেছে বলে জানা গেছে। ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ন্যাশনাল পেমেন্ট সিস্টেমের আওতায় এটিএম বুথে আন্তঃব্যাংকিং সেবা দিয়ে থাকে, অর্থাৎ এক ব্যাংকের বুথ থেকে অন্য ব্যাংকের গ্রাহকরা অর্থ লেনদেন করতে পারেন। কিন্তু গত শুক্রবার বেসরকারি ইস্টার্ন ব্যাংকের ২১ জন গ্রাহকসহ আরও কয়েকটি ব্যাংকের গ্রাহকদের এটিএম কার্ডের তথ্য জালিয়াতি করে চোরেরা কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় বলে অভিযোগ ওঠে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ব্যাংক সতর্কতা জারি করার পর ব্যাংকগুলো এই ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানা গেছে। বেসরকারি সিটি ব্যাংকের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা তাদের বুথগুলোতে অন্য ব্যাংকের গ্রাহকদের সেবা দান বন্ধ রাখার খবর নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অন্য ব্যাংকগুলোও একই ব্যবস্থা নিয়েছে। এর ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, যেহেতু বেশকিছু ব্যাংকের কার্ড প্রযুক্তি ব্যবহার করে জাল করে ফেলেছে চোরেরা, সে জালকৃত কার্ড ফুরিয়ে যাওয়ার কথা নয়, আরও থাকতে পারে। যদি থেকে থাকে তবে সে জালকার্ড দিয়ে আবারও চুরি করতে পারে। সে কারণে সেবাটি আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। সংকট সমাধান না হওয়া পর্যন্ত সেবাটি বন্ধ থাকবে বলে জানান তিনি। আরও একটি বেসরকারি ব্যাংকের এটিএম বিষয়ক কর্মকর্তা বলেন, ঘটনার পর থেকে এখন পর্যন্ত সেবাটি বন্ধ আছে। এর বেশি কিছু তিনি বলতে চাননি। এ বিষয়ে আরও জানতে ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের সংগঠন ‘অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি)’ চেয়ারম্যান ও বেসরকারি মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনিস এ খানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও সংযোগ পাওয়া যায়নি। তবে বেসরকারি একটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জানিয়েছেন, আন্তঃব্যাংক সেবাটি আপাতত বন্ধ রয়েছে। এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেছেন, এটিএম বুথগুলোতে আন্তঃব্যাংকিং বন্ধ রাখার কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি। গ্রাহকদের স্বার্থই সবার আগে। আগের মতোই সার্বক্ষণিকভাবে এটিএম বুথ ও অন্যান্য সুবিধা চালু রাখতে হবে। ব্যাংকগুলো যদি এমনটি করে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বর্তমানে ৮৫ লাখের মতো এটিএম কার্ড ব্যবহারকারী রয়েছেন। বিপরীতে সব ব্যাংকের ৭ হাজারের মতো এটিএম বুথ রয়েছে।-ডেস্ক

নিউজট শেয়ার করুন..

এই ক্যাটাগরির আরো খবর