(দিনাজপুর২৪.কম) আব্দুস সাত্তার (৬৫)। থাকেন রাজশাহী মহানগরীর ভদ্রা রেল লাইনের ধরের বস্তিতে। সকালে হাতে ব্যাগ নিয়ে তিনি শহরে বেরিয়েছিলেন মাংস সংগ্রহের জন্য। সন্ধ্যার আগেই বাড়ি ঘুরে ঘুরে মাংসে ব্যাগ ভর্তি। ব্যাগ ভর্তি মাংস নিয়ে রাজশাহী রেলস্টেশন চত্বরে। পলিথিন বিছিয়ে মাংস কেনা হচ্ছে। ৪০০ টাকা কেজি দরে আব্দুস সাত্তার সাড়ে চার কেজি মাংস বিক্রি করেন।

আব্দুস সাত্তার জানান, তার স্ত্রী ও দুই ছেলেও মাংস সংগ্রহে বেরিয়েছেন। কোরবানির দিনে তারা প্রতিবছরই এভাবে বের হন। দিন শেষে মাংসের দোকানগুলোতে মাংস বিক্রি করে বেশ ভালোয় আয় হয়।

শুধু আব্দুস সাত্তারই নয়। তার মতো অনেকেই সেখানে মাংস বিক্রি করতে ভিড় জমায়।

আর যারা কোরবানি দিতে পারে না তারা ওইসব দোকান থেকে মাংস কিনে নিয়ে বাড়িতে যায়। সন্ধ্যার পর থেকেই দোকানগুলোতে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের ভিড় লেগে থাকে। কেউ বিক্রি করে আবার কেউ কিনছে।

স্টেশনের সামনে মাংসের দোকান দিয়ে বসেছেন আমজাদ হোসেন। তিনি জানান, প্রতিবছর তিনি সেখানে মাংসের দোকান দেন। এক হাতে মাংস কেনেন, অন্য হাতে বিক্রি করেন। এতে তার ভালোই লাভ থাকে।

তিনি বলেন, অভাবি মানুষরা সারাদিন বাড়ি বাড়ি ঘুরে মাংস সংগ্রহ করে তাদের কাছে বিক্রি করেন। তিনি সেগুলো কিনে নিয়ে আবার বিক্রি করেন।  -ডেস্ক