(দিনাজপুর২৪.কম) বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন বলেছেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান একজন সেক্টর কমান্ডার ছিলেন। তিনি ছিলেন রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধা। কিন্তু ইদানিং কিছু আওয়ামী লীগের লোক বলে বেড়াচ্ছেন শহীদ জিয়া মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন না। যা সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর নয়া বাজারে বংশাল থানা বিএনপি কার্যালয়ে শহীদ জিয়ার ৩৮ তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন বলেন, জীবিত মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাধীনতা যুদ্ধের স্বীকৃত স্বরূপ সবচেয়ে বড় খেতাব হলো বীর উত্তম। স্বাধীনতার পর ১৯৭২-৭৫ এ শেখ মজিবুর রহমান যখন ক্ষমতায় তখন তার সরকারই শহীদ জিয়াকে বীর উত্তম উপাধি দিয়েছিলেন। সে যদি মুক্তিযোদ্ধা না হতেন তাহলে শেখ মজিবুর রহমান সাহেব ৭২-৭৫ এ তাকে কেন বীর উত্তম উপাধি দিয়েছিলেন? তিনি বলেন, আমাদের নেতা জিয়াউর রহমান বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা। আজকে রাষ্ট্রীয় আয়ের সিংহভাগ আসছে প্রবাসীদের মাধ্যমে যা জিয়াউর রহমানের হাত ধরে শুরু হয়েছিলো। এই যে গার্মেন্টস শিল্প এর বিকাশেও জিয়াউর রহমানের অবদান ছিলো অস্বীকার্য। তিনি বলেন, যেখানেই ভালো কাজ সেখানেই আমাদের নেতা জিয়াউর রহমান। আর যেখানেই খারাপ কাজ সেখানেই আওয়ামী লীগ।

বিএনপির এই নীতিনির্ধারক বলেন, আওয়ামী লীগ তাদের ক্ষমতা পাকাপোক্ত করে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করার লক্ষ্যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রেখেছেন। তিনি বলেন, আন্দোলন ছাড়া কোন কিছু মুক্ত করা যায় না, বেগম জিয়াকেও মুক্ত করা সম্ভব না। তাই আমারা ঐক্যবদ্ধ অন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে পুনুরুদ্ধার এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনবো- ইনশাআল্লাহ। -ডেস্ক