(দিনাজপুর২৪.কম) একটি লাভ স্টোরি। প্রেমিকা পাকিস্তানের। প্রেমিক ভারতের। তাদের প্রেমের চূড়ান্ত পরিণতি পাওয়ার কথা ১লা আগস্ট। কিন্তু তা আটকে গেছে ভিসার কারণে। প্রেমিকা সাদিয়ার (২৫) বাড়ি পাকিস্তানের করাচিতে। প্রেমিক সৈয়দের (২৮) বাড়ি ভারতের লক্ষেèৗতে। প্রেমিককে বিয়ে করতে ভারতে আসতে চাইছেন সাদিয়া। কিন্তু তিনি ভিসা পাননি। ফলে ১লা আগস্ট তিনি মনের মানুষকে আপন করে নিতে পারবেন কিনা তা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে সংশয়। তাই তিনি এ পরিস্থিতিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া। এতে বলা হয়েছে, বিয়ে ঠিক হয়ে যাওয়ায় ভারতের লক্ষেèৗতে আসার কথা সাদিয়া, তার পিতামাতা ও ভাইয়ের। এখানে এসে সাদিয়াকে বিয়ে দিতে চান তারা। সে জন্য ইসলামাবাদে অবস্থিত ভারতীয় হাই কমিশনে ভিসা চেয়ে আবেদন করেছেন তারা। কিন্তু দু’বার এমন আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে হাই কমিশন। এতে বুকে গোপন কষ্ট চেপে রেখেছেন সাদিয়া। তিনি বলেন, আমার দুর্ভোগের এখন কোনো শেষ নেই। কেন আমাকে ভিসা দেয়া হচ্ছে না সে সম্পর্কে হাই কমিশন কোনো ব্যাখ্যা দিচ্ছে না। গত এক বছর ধরে আমরা ভিসা পাওয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। সাদিয়া মনে করেন, ভারত-পাকিস্তানের সম্পর্কে যে তিক্ততা রয়েছে সে জন্যই হয়তো তাকে ভিসা দেয়া হচ্ছে না। তাই তিনি সুষমা স্বরাজের দৃষ্টি আকর্ষণ করে টুইট করেছেন। লিখেছেন, দয়া করে এই কন্যাটিকে সাহায্য করুন। আপনিই এখন আমার একমাত্র আশা, ভরসা।
উল্লেখ্য, সাদিয়া ও সৈয়দের বিয়ে ঠিক করা হয় ২০১২ সালে। ওই সময় সাদিয়া ও তার পরিবারের সদস্য লক্ষেèৗ সফর করেছেন। বিয়ে ঠিক হয়ে যাওয়ার পর দু’পরিবারই ফোনে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত যে এই বিয়ে হবে এমন কোনো সুযোগ দেখছেন না তারা। কারণ, প্রতিবারই ভিসা আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সহায়তা চেয়েছেন পাত্র সৈয়দও। -ডেস্ক