(দিনাজপুর২৪.কম) মোনাকোয় চ্যাম্পিয়নস লীগ ড্র অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ ক্রীড়া সাংবাদিক রেশমিন চৌধুরী। এ নিয়ে টানা তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়নস লীগ ড্রয়ের উপস্থাপনা করলেন তিনি। বৃহস্পতিবার রাতে মোনাকোর গ্রিমালদি ফোরামে মঞ্চ আলোকিত করে রেখেছিলেন রেশমিন। প্রাণবন্ত উপস্থাপনার সঙ্গে মেসি-রোনালদোকে কিছু প্রশ্নও করেছেন ৪১ বছর বয়সী এ সংবাদকর্মী। এ নিয়ে টানা তৃতীয়বার চ্যাম্পিয়নস লীগ ড্র অনুষ্ঠানের সঞ্চালকের ভূমিকায় দেখা গেলো রেশমিনকে। মঞ্চে ওঠার আগেই টুইটার বার্তায় নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন রেশমিন, ‘আজ চ্যাম্পিয়নস লীগ ড্র। আমি হ্যাটট্রিকের দোরগোড়ায়।’ উপস্থাপনা শেষেও ধন্যবাদ জানিয়েছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফাকে। রেশমিন টুইট করেন, ‘চ্যাম্পিয়নস লীগের মতো মর্যাদাপূর্ণ অনুষ্ঠানে আমাকে ফিরিয়ে আনা এবং উপস্থাপনার সুযোগ করে দেয়ার জন্য উয়েফাকে ধন্যবাদ।’ কিছুদিন আগে ‘টকস্পোর্ট’-এ গেম ডে কভারেজের উপস্থাপিকা হিসেবে যোগ দেন রেশমিন।

১৯৭৭ সালে লন্ডনে প্রবাসী বাংলাদেশি এক পরিবারে জন্ম রেশমিন চৌধুরীর। যুক্তরাজ্যের বাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও অর্থনীতিতে স্নাতকের পর ২০০৩ সালে হার্লো কলেজে সাংবাদিকতার ওপর স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন। শিক্ষার্থী থাকার সময়েই রয়টার্স টিভির নিউজ হেল্প ডেস্ক অপারেটর হিসেবে তাঁর কর্মজীবনের শুরু। বিবিসি, ব্লুমবার্গ ও আইটিএনে কাজ করার পর ২০০৮ সালে রেশমিন যোগ দেন রিয়াল মাদ্রিদ টিভিতে। পরের বছর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছেড়ে রিয়াল মাদ্রিদে যোগ দেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তখন প্রথম সাংবাদিক হিসেবে রোনালদোর সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন রেশমিন। বাংলা ও ইংরেজি ছাড়াও স্প্যানিশ এবং ফ্রেঞ্চ ভাষায় পারঙ্গম এ ক্রীড়া সাংবাদিক লন্ডন অলিম্পিকেও কাভার করেছেন। দুই বছর আগে ব্রিটিশ দৈনিক ইন্ডিপেনডেন্টের জরিপকৃত ক্রীড়াক্ষেত্রে শীর্ষ ৫০ নারীর বিচারক হিসেবে কাজ করা রেশমিন ব্যক্তিগত জীবনে দুই সন্তানের মা। সাংবাদিকতার পাশাপাশি তিনি সংগীতশিল্পীও। ২০০৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘নেমসেক’ ছবিতে তাঁর কণ্ঠে একটি গান রেকর্ড করা হয়। -ডেস্ক