(দিনাজপুর২৪.কম) ঈদযাত্রার শুরুতেই ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। শুক্রবার কমলাপুর থেকে বিভিন্ন গন্তব্যের পাঁচটি ট্রেন নির্ধারিত সময়ের চেয়ে দেরিতে ছাড়ায় যাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। সকাল ৯টায় রংপুর এক্সপ্রেস ট্রেন কমলাপুর স্টেশন ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও যাত্রীরা স্টেশনে এসে জানতে পারেন এটি দুপুর ২টা ১০ মিনিট ছাড়া হবে। বাকী ট্রেনগুলোরই একই অবস্থা।

তবে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, সব ট্রেন নয়, ১৮টি ট্রেনের মধ্যে মাত্র ৪টি ট্রেন নির্দিষ্ট সময়ে পরে ছাড়া হবে। শুক্রবার সকালে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে ঈদযাত্রা পরিদর্শনে আসেন রেলমন্ত্রী। এ সময় তিনি প্লাটফর্মে থাকা দুটি ট্রেনের যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন।

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এ পর্যন্ত ১৮টি ট্রেন ছেড়ে গেছে। এর মধ্যে দেরি করেছে ৪টি ট্রেন। সবচেয়ে বেশি দেরি করেছে রংপুর এক্সপ্রেস। এই ট্রেন কাল যাতে আর দেরি না করে সেজন্য বিকল্প হিসেবে আরেকটি ট্রেন প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

আগামী ঈদুল আজহার আগে আরও তিন থেকে চারটি নতুন ট্রেন চালুর খবর জানিয়ে তিনি বলেন, রংপুর এক্সপ্রেস ও লালমনি সহ ৩ থেকে ৪ টি নতুন ট্রেন চালু হবে মাস দুয়েকের মধ্যে।

এসময় তিনি আরো বলেন, রেলের পরিস্থিতি আগের চেয়ে উন্নত হয়েছে। রেলমন্ত্রী হিসেবে তিনি তার সর্বোচ্চ চেষ্টা চালাচ্ছেন বলেও উল্লেখ করেন।

মন্ত্রী জানান, সারাদিনে ৫২টি ট্রেন ছেড়ে যাবে। ছাদে বিপুল যাত্রী উঠে গেলে ট্রেন স্বাভাবিক গতিতে চালানো সম্ভব হয়না। এ কারণে ট্রেনে দেরি হয়। এবার রেলওয়ে যাত্রীদের ছাদে উঠতে কোনো মই সরবরাহ করা হবে না।

মন্ত্রীর একান্ত সূত্র জানায়, প্রতিবছর ঈদে ট্রেন কমলাপুরে প্রবেশের সময়ই দেখা যায় যাত্রী ভর্তি হয়ে আছে। গাজীপুর থেকে অনেক যাত্রী আগেই ট্রেনে চেপে যান। এবার গাজীপুরে ট্রেন থামানো ও ফিরতি যাত্রার যাত্রী তোলা সম্পূর্ণ নিষেধ করে দেয়া হয়েছে। -ডেস্ক