(দিনাজপুর২৪.কম) প্ল্যাটিনাম ইভেন্টস্-এর আয়োজনে রাজধানীতে শুরু হয়েছে দুদিনব্যাপী ‌ই-কমার্স প্রোমোশন এক্সপো। রাজধানীর গুলশানে গার্ডেনিয়া গ্রান্ড হলে আজ শুক্রবার সকালে মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।  অনুষ্ঠানে ই-কমার্স খাতের বিকাশে প্রয়োজনীয় নীতিমালা প্রণয়নের আহ্বান জানানো হয়। ই-কমার্স এক্সপোর উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকা ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি কামরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এ্যামটপ-এর সেক্রেটারি জেনারেল টি আই এম নূরুল কবীর। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কামরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশে প্রায় ১৫ কোটি মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে এবং তাদের মাঝে প্রায় ৮ কোটি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে। এ সংখ্যা প্রতিনিয়তই বাড়ছে।  এর থেকেই বোঝা যায়, বাংলাদেশে ই-কমার্স কার্যক্রমের সম্ভাবনা অত্যন্ত উজ্জ্বল। সম্ভাবনাময় এ খাতটির বিকাশের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণের প্রতি গুরুত্ব দেওয়ার জন্য নীতিনির্ধারকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। কামরুল ইসলাম আরো জানান, আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতিযোগিতার জন্য বাংলাদেশি পণ্যের ‘প্রডাক্ট লিস্টিং’ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং এক্ষেত্রে দরাজ ডটকম এখাতের উদ্যোক্তাদের সহায়তা প্রদানে আগ্রহী। ২০১৭ সালে দেশের ই-কমার্স খাতের পরিমাণ বেড়েছে প্রায় ৭০% এবং এর পরিমাণ ছিল প্রায় ১ হাজার কোটি টাকা। তিনি বলেন, আমাদের জিডিপিতে ই-কমার্সের অবদান ১%-এর কম, তবে এখাতের সাথে প্রায় ১ হাজার উদ্যোক্তা ওতোপ্রোতভাবে জড়িত এবং ই-কমার্স খাত প্রায় ১ লাখ লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করেছে। এ্যামটপ-এর সেক্রেটারি জেনারেল টি আই এম নূরুল কবীর বলেন, বর্তমানে সারা বিশ্বে ডিজিটাল যোগাযোগ মাধ্যম অত্যন্ত জনপ্রিয় ও অত্যন্ত কার্যকর এবং ইন্টারনেট সারা পৃথিবীতে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনার ধরন পাল্টে দিয়েছে। আমাদের দেশের তরুণ উদ্যোক্তারা তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারে অত্যন্ত দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে, যার ফলে আশা করা যায় এ ধরনের উদ্যোক্তাদের নিরলস প্রয়াসের মাধ্যমে বাংলাদেশে ই-কমার্স একটি নতুন দিগন্তের সূচনা করবে। নূরুল কবীর আরো বলেন, আমাদের দেশে গুণগত মানসম্পন্ন প্রচুর পণ্য উৎপাদিত হচ্ছে এবং এসব পণ্যের মার্কেটিং বা বাজারজাতকরণে আমরা তুলনামূলকভাবে পিছিয়ে আছি, যেক্ষেত্রে ই-কমার্সের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। আমাদের দেশের তথ্য-প্রযুক্তি খাতের সঠিক বিকাশের জন্য নীতিমালা প্রণয়ন, আর্থিক অনুদান প্রদান এবং এখাতের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ একান্ত আবশ্যক এবং এ লক্ষ্যে সরকারকে এগিয়ে আসার জন্য তিনি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, সম্প্রতি দেশে চালু হওয়া ফোরজি নেটওয়ার্ক ব্যবহারের মাধ্যমে ই-কমার্স আরো সম্প্রসারিত হতে পারে।  কম্পিউটার প্রযুক্তিসহ ইন্টারনেটের ওপর থেকে আগামী দুই বছরের জন্য সব ধরনের ভ্যাট, শুল্ক ও সারচার্জ প্রত্যাহারের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

আয়োজিত এ মেলায় বাংলাদেশে অনলাইনে ব্যবসা পরিচালনা করছে এমন ৬০ জন্য উদ্যোক্তা অংশগ্রহণ করেছে, যার মধ্যে তৈরি পোশাক, জুতা, প্রশাধনী এবং গৃহসজ্জা প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। ‘ই-কমার্স প্রোমোশন এক্সপো’ শেষ হবে শনিবার। -ডেস্ক