(দিনাজপুর২৪.কম) যুব বিশ্বকাপে একটু দেরিতেই জ্বলে উঠল বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব-১৯ দল। আজ কুইন্সটাউনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পঞ্চম স্থান নির্ধারণী প্লে অফে বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব–১৯ দল জিতেছে ৫ উইকেটে। প্রথমে ব্যাটিং করে ইংলিশদের গড়া ২১৬ রানের স্কোর বাংলাদেশ পেরিয়ে যায় (২২০/৫) ১৫ বল হাতে রেখেই। ব্যাটে–বলে আজও দুর্দান্ত ছিলেন আফিফ হোসেন।

গ্রুপ পর্বে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হারতে হয়েছে। রোববার পঞ্চম স্থান নির্ধারণী ম্যাচের সেমিফাইনালে সেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই মন্দ হয়নি বাংলাদেশের যুবাদের বোলিং পারফরম্যান্স। টসে জিতে বোলিং নিয়ে ইনিংসের প্রথম ২৫ ওভারে ইংলিশদের আধিপত্যের মুখে পড়লেও শেষ ২২ ওভারে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বোলাররা নিজেদের সামলে নিয়ে ইংল্যান্ডের সংগ্রহটা প্রত্যাশামাফিক হতে দেননি।

৪৭.২ ওভারে ২১৬ রানেই গুটিয়ে যাওয়া ইংল্যান্ড প্রথম ২৫ ওভারে ১ উইকেটে ১৩৮ রান তুলে ফেলেছিল। কিন্তু শেষ ২২ ওভারে ৭৮ রানে ৯ উইকেট হারিয়ে পথহারা তারা। এ জন্য অবশ্য বাংলাদেশের দুই পেসার কাজী অনিক ও হাসান মাহমুদের দুর্দান্ত অবদান। দারুণ অবদান অফ স্পিনার আফিফ হোসেনেরও। হাসান ও আফিফ ৩টি করে উইকেট পেয়েছেন। অনিক নিয়েছেন ২ উইকেট। এ ছাড়া রবিউল হক ও মোহাম্মদ রকিব তুলে নিয়েছেন ১টি করে উইকেট।

ব্যাটিংয়ে নেমে টম বেনটনের উইকেট হারিয়েছিল ইংল্যান্ড দলীয় ১৭ রানের মাথায়। কিন্তু এরপর পুরোপুরিই ‘ইংরেজ-রাজ’। অধিনায়ক হ্যারি ব্রুক ও লিয়াম ব্ল্যাংকের পঞ্চাশোর্ধ্ব দুই ইনিংসে ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল নিজেদের সংগ্রহটা তিন শর ওপরে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্নই দেখছিল। ব্যাংকসের ব্যাট থেকে আসে ৭৪, ৮২ বলে। ব্রুকস ৬৬ বলে করেন ৬৬। এই জুটি বিপজ্জনক হয়ে উঠতেই মোহাম্মদ রকিবের বলে ব্ল্যাংক রবিউল হকের দুর্দান্ত এক ক্যাচে পরিণত হলে বাংলাদেশের ভাগ্য খুলে যায়। এরপর ইংল্যান্ডের উইকেট পড়েছে নিয়মিত বিরতিতেই। উইকেটরক্ষক জ্যাক ডেভিসের ৪১ বলে ২৬ আর প্রেম সিসোদিয়ার ৩২ বলে ২০ রান ছাড়া এরপর ইংল্যান্ডের ইনিংসে বলার মতো কোনো সংগ্রহ নেই। -ডেস্ক