(দিনাজপুর২৪.কম) পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান শিকদার এবং সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ভূঁইয়ার নেতৃত্বে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও পটুয়াখালী জেলা বিএনপির সভাপতি এয়ার ভাইস মার্শল (অবঃ) আলতাফ হোসেন চৌধুরীর বাসভবনে হামলার ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই হামলা আবারও প্রমাণ করল- আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসনির্ভর একটি রাজনৈতিক দল। এরা সন্ত্রাসের পরিকাঠামো তৈরি করে জোর করে রাষ্ট্রক্ষমতা কব্জায় রাখতে চায়।

বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারী) বিএনপির সহদফতর সম্পাদক মুহাম্মদ মুনির হোসেন সাক্ষরতি এক বিবৃতিতে তিনি একথা বলেছেন।

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, বুধবার (১ জানুয়ারী) পটুয়াখালীতে সকাল সাড়ে ১১টার সময় পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান শিকদার এবং সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ভূঁইয়ার নেতৃত্বে ছাত্রলীগের একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান ও পটুয়াখালী জেলা বিএনপি’র সভাপতি এয়ার ভাইস মার্শল (অবঃ) আলতাফ হোসেন চৌধুরীর বাসভবনের প্রধান ফটক ভেঙ্গে বাসায় প্রবেশ করে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা বাড়ির দামী আসবাবপত্রসহ সবকিছু ভেঙ্গে তছনছ করে। ইতোপূর্বেও আলতাফ হোসেন চৌধুরীর বাসায় এধরণের হামলা সংঘটিত হয়। বারবার আলতাফ হোসেন চৌধুরীর বাসভবনে ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীদের দ্বারা এহেন ঘৃণ্য, ন্যাক্কারজনক ও কাপুরোষোচিত হামলার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব।

বিবৃতিতে ফখরুল বলেন, বুধবার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান শিকদার ও সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ভূঁইয়ার নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আলতাফ হোসেন চৌধুরীর পটুয়াখালীর বাসভবনের প্রধান ফটক ভেঙে বাসায় প্রবেশ করে ব্যাপক ভাংচুর চালায়।

তিনি আরও বলেন, সন্ত্রাসীরা বাড়ির দামি আসবাবপত্রসহ সবকিছু ভেঙে তছনছ করে। আওয়ামী নেতাদের ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্যে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আরও বেপরোয়া হওয়ার শিক্ষা পেয়েই ইংরেজি নববর্ষ বরণের মতো দিনে কোনো কারণ ছাড়াই তার বাসায় হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে। এটি করে ছাত্রলীগ জানান দিল যে, অতীতের বছরগুলোর মতোই ২০২০ সালেও তারা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে বিএনপিকে রাজনীতির ময়দান থেকে বিদায় করতে সর্বশক্তি নিয়োগ করবে। সুতরাং এটি নিঃসন্দেহে বলা যায়- ছাত্রলীগ ও সন্ত্রাস ওৎপ্রোতভাবে জড়িত।

ফখরুল বলেন, সারা দেশে ছাত্রলীগের যে পৈশাচিক ও বর্বরোচিত সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চলছে। আলতাফ হোসেনের বাসভবনে সংঘটিত বারবার হামলা সেটিরই নিরবচ্ছিন্ন অংশ।

তিনি বলেন, দেশব্যাপী ছাত্রলীগ-যুবলীগের দৌরাত্বে দেশের মানুষ এখন বাকরুদ্ধ। দোষীদের আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচার না করার কারণেই সরকারদলীয় সন্ত্রাসীরা সারা দেশে খুনখারাবি, ভাংচুর ও জুলুমের রাজত্ব কায়েম করেছে। তবে এভাবে নিষ্ঠুর কায়দায় দেশ চালাতে গিয়ে দেশ-বিদেশের স্বৈরশাসকরা ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে। বর্তমান আওয়ামী সরকারও তাদের ভয়াবহ দুঃশাসন ও ঘৃণ্য কর্মকাণ্ডের জন্য ইতিহাসের আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হবে।

সরকারের উদ্দেশ্যে মির্জা ফখরুল বলেন, সন্ত্রাসীদের লাগাম টেনে ধরুন। বিএনপিসহ বিরোধী দলগুলোর নেতাকর্মীদের ওপর জুলুম বন্ধ করুন। নইলে দেশবাসী আপনাদের ক্ষমা করবে না।

বিবৃতিতে পটুয়াখালী জেলা বিএনপির সভাপতি ও দলের কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরীর বাসভবনে হামলার ঘটনায় দোষীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান মহাসচিব মির্জা ফখরুল। -ডেস্ক