(দিনাজপুর২৪.কম) একটি ঘৃণ্য অপপ্রয়াসের শিকার হয়েছেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান, চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। ৭ সেপ্টেম্বর একটি অনলাই নিউজ পোর্টালে খবর প্রকাশিত হয় ‘নির্বাচন করবেন ইলিয়াস কাঞ্চন’। আর নিউজটির সঙ্গে বাস্তব বিষয়গুলোর কোন মিল নেই। মুখরোচক কথামালার কল্পকাহীনিতে ভরপুর।

নিউজে লেখা হয়েছে, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী একঝাঁক তারকা। মনোনয়ন পেতে নানাভাবে চেষ্টা-তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। তারকাদের মনোনয়ন দেওয়ার অতীত রেকর্ড তেমন একটা নেই বিএনপির। একাধিক সূত্রে জানা গেছে, আগামী নির্বাচন সামনে রেখে বিএনপি ঘরনার বাইরেও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বেশ কয়েকজন তারকাকে দলে ভেড়াতে ভেতরে ভেতরে কাজ চালাচ্ছেন দায়িত্বপ্রাপ্তরা। তাদের মধ্যে মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

বিষয়টি ইলিয়াস কাঞ্চনের দৃষ্টিতে পড়লে তিনি বিস্মিত হন। তীব্র নিন্দা জানিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, দায়িত্বজ্ঞানহীন ভাবে মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে অযথা পাঠকদের মাঝে এমন বিভ্রান্তি ছড়ানোর কি মানে,তা আমার বোধগম্য নয়। আমি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি আমি জানিনা! তারা কোন তথ্যের ভিত্তিতে কার সাথে কথা বলে আমার নামে এমন মিথ্যা সংবাদ প্রচার করলো? আমি এর তীব্র নিন্দা জানাই।

তিনি আরও বলেন, ‘আমি কখনো কাউকে বলিনি আমি নির্বাচন করব বা নির্বাচনে যাবার ইচ্ছা আছে। আমি কোন রাজনৈতিক দলকে সমর্থণ করি না বা কোন দলের পক্ষে বা বিপক্ষেও কথা বলিনা। আমরা ধ্যান-জ্ঞান হচ্ছে এদেশের মানুষকে ঘিরে। সড়কের ভয়াল থাবা থেকে এদেশের মানুষকে নিরাপদ রাখার আন্দোলনের মাঝে আমি নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছি। আমার কোন রাজনৈতিক উচ্চাভিলাষ নেই।

১৯৭৭ সালে ‘বসুন্ধরা’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন তিনি। তিনি বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের নব্বই দশকের একজন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেতা। ‘বেদের মেয়ে জোছনা’ ছবিতে তিনি নায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেন যা এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সর্বাধিক ব্যবসাসফল ও জনপ্রিয় চলচ্চিত্র হিসেবে স্বীকৃত। কাঞ্চন ৩০০টিও বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। তিনি একাধিকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। -ডেস্ক