আমরা নিজের পায়ে দাঁড়ানোর সুযোগ পেলাম : প্রধানমন্ত্রী(দিনাজপুর২৪.কম) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আজ আমি খুবই আনন্দিত। কারণ দেশের সব টিভি চ্যানেল বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করেছে। এতদিন আপনারা দেশের বাইরে টাকা পাঠাতেন। এখন আপনাদের অনেক টাকা বেঁচে গেল। আশা করি ইলেকট্রনিক সম্প্রচার মাধ্যমগুলোর আরও অনেক বাধা দূর হবে। পরনির্ভরশীলতা থাকবে না। আমরা নিজের পায়ে দাঁড়ানোর সুযোগ পেলাম।

আজ বুধবার (২ অক্টোবর) সকালে হোটেল সোনারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর বাণিজ্যিক সম্প্রচার কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা আশপাশের দেশগুলোর কাছেও অফার করেছি। তারাও চাইলে ভাড়া নিতে পারবে এর ট্রান্সপন্ডার। এখান থেকেও আমরা অর্থ উপার্জন করতে পারবো। স্যাটেলাইটের মাধ্যমে প্রত্যন্ত অঞ্চলে অনেক সহজে বার্তা পৌঁছানো যাবে। নিজস্ব প্রযুক্তি ও জ্ঞান দিয়ে বাংলাদেশ একদিন মহাকাশ জয় করবে, এটা আমার বিশ্বাস।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ আজ ডিজিটাল। আমি বাংলা সাহিত্যের ছাত্রী, ডিজিটাল শব্দটি আমি জানতাম না। এটা আমাকে দিয়েছিল সজীব ওয়াজেদ জয়।

গণমাধ্যমের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে কথা না বললে আকর্ষণ থাকবে না—এমন ধারণা প্রচলিত আছে। আপনারা সেটা করতে পারেন, তাতে আমার কোনো সমস্যা নেই। তবে মিথ্যা অপপ্রচার যেন না হয় দয়া করে সে ব্যাপারে সতর্ক থাকবেন। মিথ্যা অপপ্রচারে দেশের মানুষের মধ্যে সন্দেহ হয়। এমন কিছু করবেন না যাতে মানুষ আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলে।

তিনি বলেন, গত ১০ বছরে দেশের জন্য আমরা অন্তত কিছু কাজ তো করেছি। সেটা তো অস্বীকার করতে পারবেন না। সেটা একটু প্রচার করবেন। যেটুকু ভালো কাজ করেছি সেটুকু প্রচার করুন, এটুকু আমি চাইতেই পারি। তথ্যগুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দেবেন। যাতে মানুষের মধ্যে আত্মবিশ্বাস বাড়ে। সেদিকে দৃষ্টি রেখে কাজ করবেন।

দুর্নীতি ও ক্যাসিনোবিরোধী চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। অপরাধী যে-ই হোক না কেন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দল, আত্মীয়, পরিবার নয়, সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোনও ছাড় দেওয়া হবে না। আমার হারানোর আর কিছু নেই। আমি দেশের মানুষের জন্য জীবন বাজি রেখেই কাজ করে যাচ্ছি।

তৃণমূল মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছে সরকার জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, দেশের ৯৩ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছে। ইন্টারনেট সেবা গ্রাম পর্যায়ে নিয়ে যেতে কাজ করা হচ্ছে।

সরকারপ্রধান বলেন, বাংলাদেশ যাতে বিশ্বের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকতে পারে সে জন্য সব ক্ষেত্রকে বেসরকারি খাতে উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।-ডেস্ক