(দিনাজপুর২৪.কম) একদিকে দেশে চলছে শিশু হত্যার প্রতিবাদ। অন্যদিকে প্রতিদিনই ঘটছে নির্যাতনের ঘটনা। এবারে অন্য হোটেলে কাজ নেয়ার অপরাধে জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলায় শিশু সাহাদের চুল ও ভ্রু কেটে মারধর করেছে এক হোটেল মালিক। এ ঘটনায় হোটেল মালিকসহ তিন অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার রাত আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। শিশু সাহাদের বাবা সহর আলী সংবাদমাধ্যমকে জানান, আক্কেলপুর তুলসীগঙ্গা নদীর পাড়ে চকিদার পাড়া এলাকার শহর রক্ষা বাঁধের উপর ঝুপড়িঘরে থাকেন তারা। অভাবের সংসার, তাই দুই মাস আগে ছেলে সাহাদকে আক্কেলপুর পৌর সদরের কলেজ মসজিদের পাশে মেগা হোটেল অ্যান্ড ও ফাস্ট ফুড নামের একটি হোটেলে কাজ করতে দেন তিনি। সম্প্রতি সাহাদ ওই হোটেলের কাজ ছেড়ে পাশের খোকন হোটেলে কাজে যোগ দিলে ক্ষিপ্ত হয় মেগা হোটেলের মালিক আবদুল মতিন। শনিবার বিকালে হোটেলের কাজ সেরে ফেরার পথে সাহাদকে কৌশলে রাস্তা থেকে হোটেলের ভেতরে ডেকে নেন মতিন। এ কাজে তাকে সাহায্য করে রুবেল নামে মেগা হোটেলের এক কর্মচারী। পরে ওই রুবেলসহ সাহাদকে ধরে মারধোর করার পর হোটেলের পাশের সুমনের সেলুনে নিয়ে জোর করে দুই চোখের ভ্রু ও মাথার চুল বিকৃত করে কাটিয়ে দেয় তারা।

ওই অবস্থায় সাহাদ কাঁদতে কাঁদতে বাড়িতে ফিরে গিয়ে নির্যাতনের বিষয়টি অভিভাবকদের খুলে বলে। সব শুনে তার অভিভাবক, আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসী ওই হোটেলের সামনে গিয়ে ঘটনার প্রতিবাদ জানায়। এরপর রাত নয়টার দিকে ঘটনাটি থানায় জানানো হলে পুলিশ গিয়ে মেগা হোটেলের মালিক আব্দুল মতিন, কর্মচারী রুবেল ও সেলুন মালিক সুমনকে আটক করে। -ডেস্ক