(দিনাজপুর২৪.কম) বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচিতে বাধা দিয়েছে পুলিশ। এ সময় প্রায় ২০ মিনিটের মতো পুলিশের সঙ্গে তাদের ধাক্কাধাক্কি হয়।

জানা গেছে, পুলিশের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কিতে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ৪/৫ জন কর্মী আহত হয়েছেন।

বুধবার (১০ অক্টোবর) দুপুরে সচিবালয় গেটে এ ঘটনা ঘটে। প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিছিল নিয়ে সচিবালয় ঘেরাও করতে গেলে বাধা দেয় পুলিশ।

পরে প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা সচিবালয়ের সামনের সড়কে বসে পড়েন। সেখানে আবরার হত্যার বিচার চেয়ে স্লোগান দেন। এ হত্যাকাণ্ডে সরকারের ব্যর্থতাকে দায়ী করেন তারা।

ছাত্রনেতারা সঙ্গে আবরার হত্যার সঙ্গে জড়িত প্রত্যেকের বিচার দাবি করেন। বুয়েট প্রশাসনকে ব্যর্থ আখ্যা দিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান তারা।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি মাসুদ রানা এ বিষয়ে আমার সংবাদকে বলেন, পুলিশি হামলায় ছাত্রফ্রন্টের ইডেনের সেক্রেটারি শাহিনুর আক্তার সুমিসহ আমাদের ৪/৫ জন আহত হয়েছে। পুলিশিই আগে আমাদের বাধা দেয়। আমাদের কর্মীদের গায়ে হাত দেয়। পুলিশ আগে বাধা না দিলে এ ঘটনা ঘটতো না।

অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার রমনা জোনের এইচ এম আজিমুল হক আমার সংবাদকে বলেছেন, এভাবে মিছিল নিয়ে ঘেরাও করার সুজোগ কারো নেই। তারা আমাদের আক্রমণ করেছে। তারা বিনা উসকানিতে পুলিশের সঙ্গে আক্রমণে জড়িয়ে পড়ে। আমরা ধৈর্যের সাথে মোকাবেলা করেছি।

উল্লেখ্য, ভারতের সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করে শনিবার বিকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ। এর জের ধরে রোববার রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বেধড়ক পেটানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।-সূত্র : আ. সংবাদ