(দিনাজপুর২৪.কম) বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পেছনে নিশ্চয়ই কোনো কারণ আছে বলে মনে করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর তেজগাঁও টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটক উদ্বোধন শেষে তিনি একথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এই ধরনের ঘটনা এমনিতে ঘটে না। হত্যার পেছনে নিশ্চয়ই কোনো কারণ আছে।’ প্রশাসন ভবিষ্যতে ছাত্রদের প্রতি আরও নজর দেবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘বুয়েটের আরও কেয়ারফুল হওয়া উচিত ছিল। তারা আর একটু কেয়ারফুল থাকলে হয়তো এ ধরনের ঘটনা নাও ঘটতে পারত।‘

আবরার হত্যাকাণ্ডে নিখুঁত চার্জশিট দেওয়া হবে জানিয়ে স্বরাষ্টমন্ত্রী বলেন, ‘আবরার ফাহাদের হত্যাকাণ্ডের ঘটনার তদন্ত করে নিখুঁত চার্জশিট দেওয়া হবে।’

গত রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের নিচতলা থেকে আবরার ফাহাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সোমবার রাতে ১৯ জনকে আসামি করে তার বাবা বরকত উল্লাহ ঢাকার চকবাজার থানায় মামলা করেন। এখন পর্যন্ত এ মামলায় ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলাটি তদন্ত করছে ডিবি। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার ১০ আসামির পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

রিমান্ডে যাওয়া আসামিরা হলেন, বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান রাসেল, সহসভাপতি মুহতামিম ফুয়াদ, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, উপসমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক ইফতি মোশাররেফ সকাল, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিওন, গ্রন্থনা ও গবেষণা সম্পাদক ইশতিয়াক মুন্না, মুনতাসির আল জেমি, খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভীর, মুজাহিদুর রহমান ও মেহেদী হাসান রবিন।

মামলাটিতে গতকাল বুধবার আরও তিন আসামির পাঁচ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। তারা হলেন, মো. মনিরুজ্জামান মনির, আকাশ হোসেন ও সাসছুল আরেফিন রাফাত। -ডেস্ক