(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম)আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় জালালাবাদ শহরের একটি কারাগারে জঙ্গি হামলায় অন্তত ২৯ জন নিহত হয়েছেন। হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)। গতকাল সোমবার দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

গত রোববার রাতে কারাগারে হামলা শুরুর পর আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে জঙ্গিদের প্রায় ২০ ঘণ্টা ধরে বন্দুকযুদ্ধ চলে। রাতভর সংঘাতের পর গতকাল এই হামলার অবসান ঘটে। নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে ১০ হামলাকারী নিহত হয়েছেন।

জালালাবাদ শহরটি আফগানিস্তানের নানগারহার প্রদেশের রাজধানী। এ ঘটনার বিষয়ে প্রাদেশিক গভর্নরের এক মুখপাত্র জানান, হামলায় ২৯ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৪৮ জন। হতাহত হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে বেসামরিক লোকজন, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও কয়েদি রয়েছেন। আহত ব্যক্তিদের স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, রোববার রাতে কারাগারটির প্রবেশমুখে প্রথম হামলা চালায় বন্দুকধারীরা। হামলার সময় কারাগার হাজারো কয়েদি থেকে পালানোর চেষ্টা করে। এই কয়েদিদের মধ্যে আইএস ও তালেবানের সদস্যও আছে।

হামলার জেরে প্রায় ৩০০ কয়েদি কারাগার থেকে পালিয়েছে বলে ধারণা কর্তৃপক্ষের।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, হামলার সময় ওই কারাগারে ১ হাজার ৭০০ জনেরও বেশি কয়েদি ছিল। তাদের অধিকাংশই তালেবান ও আইএসের সদস্য। কারাগার থেকে সুনির্দিষ্ট কোনো কয়েদিকে মুক্ত করার জন্য এই হামলা চালানো হয়েছিল কি না, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানের মধ্যে ঘটনাস্থলে যান আফগান সেনাপ্রধান জেনারেল ইয়াসিন জিয়া। পরে তিনি বলেন, ‘জঙ্গি হামলায় ১০ জন বন্দুকধারী অংশ নিয়েছিল। তারা সবাই নিহত হয়েছে।’ -ডেস্ক রিপোর্ট