SAMSUNG CAMERA PICTURES

কাশী কুমার দাস (দিনাজপুর২৪.কম) ৩০ জুন মহান সানতাল বিদ্রোহ দিবস উপলক্ষে দিনাজপুর সদর উপজেলা মাতাসাগর সংলগ্ন মনির সাহেবের চাতাল মাঠ প্রাঙ্গণে ইউরোপিয় ইউনিয়নের অর্থায়নে ওয়াল্ডং ভিশন, পল্লীশ্রী ও পামডো আয়োজিত সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করণের মাধ্যমে অতি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর প্রবেশাধিকার ত্বরান্বিত করা প্রকল্পের আওতায় আদিবাসীদের বর্ণাঢ্য র‌্যালী, আলোচনা সভা ও আদিবাসীদের সংস্কৃতি রক্ষায় বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরন করা হয়।
পল্লীশ্রী’র প্রকল্প সমন্বয় কারী মাইনুল হক বাপ্পী পুরস্কার বিতরণ করতে গিয়ে বলেন, আদিবাসীদের ঐতহ্য, সংস্কৃতি আজ বিলুপ্তির পথে। তাকে রক্ষা করতে হলে আদিবাসীদের সচেতন করতে হবে। তারাও এদেশের নাগরিক। অথচ তারা বিভিন্নভাবে লাঞ্ছিত হচ্ছে। তারা দিন দিন ভূমিহীন হয়ে পড়ছে। সিঁদু-কানু ছিলেন সাঁওতাল বিদ্রোহের অন্যতম নায়ক এবং বীরদ্বয় চাঁদ ও ভৈরব তাঁর অনুজ। বীরভূম জেলার ওপারে সশস্ত্র পুলিশবাহিনীর গুলিতে তাঁর মৃত্যু হয়। ভৈরব ও চাঁদ ভাগলপুরের কাছে এক ভয়ংকর যুদ্ধে প্রাণ বিসর্জন করেন। তাদের আদর্শকে সামনে রেখে সাঁওতালদের অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।