(দিনাজপুর২৪.কম)  রাশিয়া বিশ্বকাপের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে এসে আত্মঘাতী গোলে জয় পেল ইরান। আর এ গোলেই পরাজয় মেনে নিলো মরক্কো। অথচ সবাই ধরেই নিয়েছিল ম্যাচটি গোলশূন্য ড্র হতে চলছে। ম্যাচটিতে তখন অতিরিক্ত সময়ের খেলা চলছে। একেবারে ইনজুরি সময়ে ফ্রি কিক পায় ইরান। বাম উইং থেকে এহসান হাজসাফি ফ্রি কিক নিলে সেই বল ফেরাতে ঝাঁপিয়ে পড়ে হেড করলেন আজিজ বউহাদ্দাজ। কিন্তু বল ক্লিয়ার না হয়ে সোজা প্রবেশ করে মরক্কোর জালে। শুক্রবার রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামে দুই বারের আফ্রিকান নেশন্স কাপ জয়ী মরক্কো আর অপরদিকে এশিয়া কাপের তিনবারের চ্যাম্পিয়ন ইরান।

দুই দেশ ছিল সম শক্তির দল। তাই শুরু থেকেই উপভোগ্য ছিল খেলা। আক্রমণ আর পাল্টা আক্রমণে উভয় দলই জমিয়ে তুলেছিল প্রথমার্ধ। কিন্তু শত চেষ্টা করেও গোলের দেখা পায়নি কেউই।

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণের তীব্রতা দেখা যায় মরক্কোর খেলায়। ৫ম মিনিটে গোলের দারুণ একটি সুযোগ তৈরি করে মরক্কো। নরদিন আমরাবাতের ক্রস থেকে বল পেয়ে দুরহ কোণ থেকে হেড করেন ইউনুস বেলহানদা। যে কারণে তার হেডটি চলে যায় বারের ওপর দিয়ে।

আক্রমণের পাশাপাশি নিজেদের ডিফেন্স ঠিক রাখে মরক্কো। আফ্রিকান দেশটি যেন নিজ মহাদেশের রেকর্ড অক্ষুণ্ন করার লক্ষ্যেই মাঠে নামে সেন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামে। বিশ্বকাপে আফ্রিকান-এশিয়ান দেশগুলোর ৫ বারের মুখোমুখি লড়াইয়ে একবারও হারেনি আফ্রিকানরা। মরক্কোর সামনে সেই রেকর্ড অক্ষুণ্ন রাখারও কঠিন এক চ্যালেঞ্জ। ২০১০ সালে ক্যামেরুনকে জাপান ১-০ গোলে হারানোর পর থেকে ৫ ম্যাচের মধ্যে ৩টিতে জিতেছে আফ্রিকানরা। ২টি হয়েছে ড্র।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই গোলের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে মরক্কো ও ইরান। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা পাচ্ছিলেন না তারা। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার পর রেফারি অতিরিক্ত ৬ মিনিট দেন। ওই সময়ের ৫ম মিনিটেই আত্মঘাতী গোল করে বসে মরক্কো।

অথচ বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল মরক্কোই। ফিফা র‌্যাংকিংয়ে ইরান ৩৭ ও মরক্কো রয়েছে ৪১ নম্বরে। তবে সাম্প্রতিক ফর্ম মরক্কোকে এগিয়ে রাখছে। সর্বশেষ ১৮ ম্যাচ যেমন দলটি হারেনি। -ডেস্ক