তপন কুমার রায়, আটোয়ারী (দিনাজপুর২৪.কম)প গড়ের আটোয়ারীতে বিয়ের দাবীতে ভাবী এখন দেবরের বাড়িতে অবস্থান করছে। চা ল্যকর ঘটনাটি উপজেলার ধামোর ইউনিয়নের পানিশাইল গ্রামে ঘটেছে। পাশর্^বর্তী ঠাকুরগাঁও জেলাধীন বড় খোচাবাড়ি এলাকার জনৈক মো: বিষু ইসলামের মেয়ে মোছা বিউটি বেগমের সাথে গত তিন মাস পূর্বে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় উপজেলার পানিশাইল গ্রামের মৃত: নজরুল ইসলামের ছেলে মো: রসিদুল ইসলামের।
এলাকাবাসী ও ভিকটিমের পরিবার সুত্রে জানা গেছে, বৈবাহিক সম্পর্কের সুত্র ধরে বিউটির সাথে পরিচয় ঘটে একই গ্রামের মৃত: সামশুল আলমের পুত্র দেবর মো: আল-আমীনের সাথে। ভাবী-দেবরের বন্ধু সুলভ সম্পর্ককে পুজি করে দেবর আল আমীন হাঁসি-ঠাট্টার ছলে ক্রমশ: বিউটির সাথে ভাব জমিয়ে ফেলে। ভিকটিম জানায়, গেল কোরবানী ঈদের ২/৩ দিন পূর্বে তার স্বামীর অনুপস্থিতির সুযোগে দেবর হটাৎ তাদের বাড়িতে এসে তাকে জোড় পূর্বক ধর্ষন করে। দেবরের এহেণ আচরণে বিউটি হতবাক হয়ে গেলে আল আমীন তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেয় এবং ঘটনাটি কাউকে না জানাতে অনুরোধ করে। এরপরে সুযোগ পেলেই লম্পট আল আমীন তার সাথে মাঝে মধ্যেই শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। একপর্যায় বিউটি আল আমীনকে বিয়ের ব্যাপারে চাপ দিলে আল আমীন টাল বাহানা শুরু করলে বিয়ের দাবীতে সে গত ১০ সেপ্টেম্বার দেবরের বাড়িতে এসে আশ্রয় নেয়। এসময় আল আমীনের বাড়ির লোকজন বিউটিকে ব্যাপক মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করেও ব্যার্থ হয় এবং সে আত্মগোপন করে থাকে।
স্থানীয় সাংবাদিকরা ঘটনাটি জানতে বিউটির স্বামীর বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। তবে তার শাশুরী রৌশনা বেগম জানায়, বিউটিকে আর কোনভাবেই তারা পুত্রবধু হিসেবে মানবেন না।
রিপোর্টটি পাঠানো পর্যন্ত বিউটি আল আমীনের বাড়িতেই অবস্থান করছিলো এবং কোন সুরাহা হয়নি বলে এলাকাবাসী জানায়। দেবর-ভাবীর ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চা ল্যের সৃষ্টি করেছে।