মো. নাজমুল হক (দিনাজপুর২৪.কম) পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে এক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সেচ্ছাচারিতা ও শ্লিপের টাকা সঠিক ভাবে খরচ না করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার ধামোর ইউনিয়নের ৫০ নং সরকারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. দবিরুল ইসলাম স্বস্ত্রীক প্রায় ১৫ বছর ধরে কর্মরত রয়েছেন। তিনি তার খেয়াল খুশিমত বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া করেন। যখন তিনি বিদ্যালয়ে থাকেন না তখন তার স্ত্রী সহকারী শিক্ষক মাছুদা বেগমকে দায়িত্ব দিয়ে যান। স্বামী প্রধান শিক্ষক হওয়ায় মাসুদা বেগমও তার খেয়াল খুশিমত স্কুলে যাতায়াত করে। শিক্ষক ও শিক্ষাথীদের সাথে অসদাচরন করেন। প্রধান শিক্ষক বরাবরের মতই বর্তমান ম্যানেজিং কমিটি তার নিজের স্ত্রীকে শিক্ষক প্রতিনিধি ও নিজস্ব জ্ঞাতি-গোষ্ঠিদের নিয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠন করেন। সরকারী বরাদ্দকৃত শ্লিপের টাকা সঠিক ভাবে খরচ করেন না। অভিভাক খলিলুর রহমান, আব্দুল, সমিরুল, সহিদুল ও নূর ইসলামের সাথে কথা বললে জানান, প্রধান শিক্ষক ও তার স্ত্রী একই বিদ্যালয়ে দীর্ধদিন একই বিদ্যালয়ে চাকুরী করায় তারা তাদের খেয়াল খুশিমত চাকুরী করতেছেন যাতে বিদ্যালয়ের পরিবেশ সহ শিক্ষার মান দিনদিন অবনতি হচ্ছে। বিদ্যালয়ের স্বার্থে তাদের বিরুদ্ধে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের বরাবরে অভিভাবক ও এলাকার বিদোৎসাহীগন অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের ব্যাপরে প্রধান শিক্ষক জানায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ভিত্তিহীন ও মিথ্যা।