(দিনাজপুর২৪.কম) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিগত আট বছরে যে উন্নয়ন হয়েছে, তাতে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়েছে। সেইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের ১০ নেতার মধ্যে নিজেকে একজন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছেন। তাই আগামী নির্বাচনে ভোটের কোনো ঘাটতি হবে না।  এ সময় আওয়ামী লীগনেতা বিএনপির সমালোচনা করে বলেন, নির্বাচনে না যাওয়ার জন্য বিএনপি বরাবরই টালবাহানা করে। এটি বিএনপির স্বভাবসুলভ আচরণ।

সোমবার দুপুরে নওগাঁয় আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রয়াত আবদুল জলিলের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এসব কথা বলেন। নওজোয়ান মাঠে অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় সভাপত্বি করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নওগাঁ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মো. আব্দুল মালেক।

সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন, জাতীয় সংসদের হুইপ মো. শহিদুজ্জামান সরকার, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নওগাঁ-১ আসনের সংসদ সদস্য সাধন চন্দ্র মজুমদার, নওগাঁ-৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলম, নওগাঁ-৩ আসনের সেলিম উদ্দিন তরফদার, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এ কিউ এম ওয়াহিদুজ্জামান খান বাদশা, কাজী রেজাউল ইসলাম, নির্মলকৃষ্ণ সাহা, মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহনাজ বেগম প্রমুখ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ। এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে আগামী নির্বাচন নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু হবে। বিএনপি যতই সমালোচনা করুক, শেষ পর্যন্ত তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেই। কারণ নির্বাচনে অংশ না নিলে বিএনপির অস্তিত্ব থাকবে না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রপতি সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনার পর সার্চ কমিটির তালিকা থেকে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের মনোনীত ব্যক্তিদের নিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন। তারপরও বিএনপির বিষোদগার! বিএনপিকে ‘বাংলাদেশ নালিশ পার্টি’ বলে উল্লেখ করেন তিনি।

আওয়ামী লীগের প্রয়াত নেতা আবদুল জলিলের স্মৃতিচারণা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, তিনি (আবদুল জলিল) ছিলেন সাংগঠনিক, মানবদরদী ও বিনয়ী। নওগাঁর মানুষ তাকে কত ভালোবাসেন তা এই স্মরণসভায় হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতি দেখেই বোঝা যায়। মৃত্যুর পরও মানুষ তাকে হৃদয়ে রেখেছেন।

দলের নেতাদের উদ্দেশে সেতুমন্ত্রী বলেন, অন্যের জমি দখল করে, খারাপ ব্যবহার করে মানুষের ভালোবাসা পাওয়া যায় না। তৃণমূল নেতাকর্মীদের মতামত উপেক্ষা করে পকেট কমিটি গঠন করতে দেওয়া হবে না। দল যখন ক্ষমতায় থাকে তখন কিছু মৌসুমী পাখি ঝাঁকে ঝাঁকে আসে। বসন্তের এসব কোকিলের চাপে কর্মীরা কোণঠাসা হয়ে পড়ে। আর ক্ষমতা চলে গেলে হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও এসব মৌসুমী পাখির খোঁজ পাওয়া যায় না। নেতাদের এ রকম সিন্ডিকেট করতে দেওয়া যাবে না। আওয়ামী লীগ একটি গণতান্ত্রিক দল। সবকিছুই তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিতে হবে।
ওবায়দুল কাদের জানান, নওগাঁ জেলায় ৪২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে সান্তাহার হতে নওগাঁ-নওহাটার মোড়- রাজশাহী বিমানবন্দর পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক মহাসড়কের উন্নয়ন কার্যক্রম এবং ২০৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নওগাঁ-আত্রাই-নাটোর মহাসড়কের অসমাপ্ত কাজ শিগগিরই শুরু হচ্ছে। এরই মধ্যে এই দুটি প্রকল্প প্রি-একনেকে অনুমোদন পেয়েছে।

সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুল হক কমল, আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নৃপেন্দ্রনাথ দত্ত দুলাল, নিয়ামতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. এনামুল হক, নওগাঁ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান ছেকার আহম্মেদ শিষান, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট খোদাদাদ খান পিটু, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ওমর ফারুখ সুমন, ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বিমান কুমার রায়। স্মরণসভায় রাজশাহী, চাপাইনবাবগঞ্জ, জয়পুরহাট, নাটোর এবং বগুড়া থেকে আওয়ামী লীগের  বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। -ডেস্ক