(দিনাজপুর২৪.কম) অভিনয়কে বিদায় জানালেন নায়ক ও পরিচালক রাজ্জাক। বড়পর্দায় আর নতুন কোনো সিনেমায় দেখা যাবে না ঢাকাই চলচ্চিত্রের নায়করাজ হিসেবে পরিচিত এ তারকাকে। শারীরিক অসুস্থতার জন্যই নিজেকে গুটিয়ে নিলেন ‘বাবা কেন চাকর’খ্যাত নির্মাতা রাজ্জাক। চিকিৎসকের পরামর্শেই এ সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে বলে জানান তার ছোট ছেলে সম্রাট। ‘কার্তুজ’ অভিনেতা সম্রাট বলেন, ‘আব্বা অনেক দিন ধরেই অসুস্থ। কিন্তু সিনেমায় অভিনয় তো তার রক্তের সঙ্গে মিশে আছে। তাই একটু সুস্থ হলেই তিনি সিনেমায় অভিনয় করেন। কিন্তু ইদানিং তার শারীরিক অবস্থা দেখে চিকিৎসকরা বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। তাই আমরাও তাকে বুঝিয়ে বলেছি। তিনি আর সিনেমায় অভিনয় করবেন না।’
নায়করাজের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে সম্রাট বলেন, ‘এখন আল্লাহর রহমতে বেশ ভাল আছেন। পরিবারের লোকজনের সঙ্গে গল্প করেন, খাওয়া-দাওয়া বেশ স্বাভাবিক। তবে মাঝে মাঝে নিয়মিত চেকআপের অংশ হিসেবে হাসপাতালে যেতে হয়।’
১৯৬৬ সালে ‘আখেরি স্টেশন’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে রাজ্জাক চলচ্চিত্রে পা রাখেন। এর পর সালাউদ্দিন প্রোডাকশনসের ‘তের নাম্বার ফেকু ওস্তাগার লেন’ চলচ্চিত্রে ছোট একটি চরিত্রে অভিনয় করে মেধার পরিচয় দেন রাজ্জাক। পরবর্তীতে জহির রায়হানের ‘বেহুলা’ সিনেমায় নায়ক হিসেবে অভিষিক্ত হন। তিনি প্রায় ৩০০ বাংলা ও উর্দু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। পরিচালনা করেছেন প্রায় ১৬টি চলচ্চিত্র।
১৯৯০ সাল পর্যন্ত বেশ দাপটের সঙ্গেই ঢালিউডে অভিনয় করেছেন রাজ্জাক। অর্জন করেন একাধিক সম্মাননা। সেরা অভিনেতার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন পাঁচবার (১৯৭৬, ১৯৭৮, ১৯৮২, ১৯৮৪ ও ১৯৮৮)। ২০১৩ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র আজীবন সম্মাননা পুরস্কার ও ২০১৪ সালে মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননা পান তিনি।
১৯৪২ সালের ২৩ জানুয়ারি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার টালিগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন নায়ক আবদুর রাজ্জাক। -ডেস্ক