(দিনাজপুর২৪.কম) উইকিলিকসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে গ্রেপ্তার করেছে বৃটিশ পুলিশ। লন্ডনে অবস্থিত ইকুয়েডর দূতাবাস থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সাত বছর আগে এই দূতাবাসে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছিলেন অ্যাসাঞ্জ। তার বিরুদ্ধে সুইডেনে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ আনা হয়েছিল। পরে তা উঠিয়ে নেয়া হয়। পুলিশ জানিয়েছে, তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কারণ সে তখন আদালতে নিজে থেকে আত্মসমর্পণ করেনি। ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট লেনিন মোরেনো জানিয়েছেন, অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গের অভিযোগ আসার পরই তার আশ্রয় প্রার্থনার দাবি বাতিল করে দেয় তার দেশ। তবে উইকিলিকস এর আগে টুইট করে দাবি করেছে যে, জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা এবং তার আশ্রয় প্রার্থনা বাতিল করে দেয়া বে-আইনি।

বৃটেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে গ্রেপ্তারের খবর টুইট করে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি লিখেছেন, আমি নিশ্চিত করছি যে অ্যাসাঞ্জ বর্তমানে কারাগারে আছেন এবং বৃটেনেই বিচারের মুখোমুখি হচ্ছেন। তিনি এজন্য ইকুয়েডর সরকার ও লন্ডন পুলিশকে ধন্যবাদ জানান। সাজিদ জাভিদ আরো বলেন, কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়।

এর আগে দীর্ঘদিন ধরে অ্যাসাঞ্জ দূতাবাস ছেড়ে যেতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছিলেন। ৪৭ বছর বয়স্ক বিতর্কিত এই ব্যক্তির দাবি, উইকিলিকসের মাধ্যমে তথ্য ফাঁস করায় তাকে গ্রেপ্তার করা হলে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে হস্তান্তর করা হবে। তাকে যত দ্রুত সম্ভব আদালতে হাজির করা হবে বলে জানানো হয়। এর আগে তিনি লন্ডন পুলিশ স্টেশনের কারাগারে আটক থাকবেন। বৃটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যালান ডানকান জানিয়েছেন, দুই দেশের মধ্যকার সমঝোতার ভিত্তিতেই অ্যাসাঞ্জকে গ্রেপ্তার করা হলো। -ডেস্ক