(দিনাজপুর২৪.কম) বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পক্ষ থেকে ব্যাপক ভোট কারচুপির অভিযোগ আনা হলেও ভোট সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়েছে বলে দাবি করছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিউদ্দীন আহমদ। তিনি বলেছেন, ‘তৃতীয় ধাপের ভোটে কিছু অনিয়ম ও সহিংসতা বিচ্ছিন্নভাবে ঘটলেও তা আগের দুই ধাপের তুলনায় কম। বড় ধরনের জানমালের ক্ষতি ছাড়াই শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।’ শনিবার (২৩ এপ্রিল) সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনের (ইসি) মিডিয়া সেন্টারে ৩য় ধাপের ভোট শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন সিইসি। তিনি বলেন, ‘আগের দুই ধাপের অভিজ্ঞতা ও সতর্কতার কারণে তৃতীয় ধাপের নির্বাচন তুলনামূলকভাবে শান্তিপূর্ণ হয়েছে। ভোটের আগের রাতে কোথাও কোনো অনিয়ম-সহিংসতা হয়নি। ভোট চলাকালেও বড় ধরনের কোনো অঘটন ঘটেনি।’

কাজী রকিব জানান, ‘কোথাও কোথাও বিচ্ছিন্ন ঘটনার খবর পাওয়া গেলেও ভোটারের ব্যাপক উপস্থিতিতেই শনিবার তৃতীয় ধাপের ভোট সম্পন্ন হয়েছে। বিশেষ করে নারী ভোটারের লাইন ছিল দীর্ঘ। আগের তুলনায় এবার ইতিবাচক পার্থক্য লক্ষ্য করা গেছে। আশা করি, আগামী নির্বাচনগুলো কোনো ধরনের গোলযোগ ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত ভোট হবে।’

গত আড়াই মাসে ভোটকে কেন্দ্র করে ৫৮ জনের প্রাণহানি হয়েছে। অনেক নির্বাচনী এলাকায় সংঘর্ষে আহত হয়েছে সহস্রাধিক।

আগামী ধাপগুলোতে এসব সহিংসতা ও অনিয়ম শূন্যের কোটায় আনতে আরো কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানান সিইসি।

সিইসি বলেন, ‘রাজনৈতিক দলের কর্মীদের অসহিষ্ণুতার কারণে সহিংসতা ঘটছে। মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করলে ও সবার মত প্রকাশের ক্ষেত্রে সাহায্য করলে কোনো অঘটন ঘটবে না। আমরা সবার সহযোগিতা চাই।’

বিএনপি’র অভিযোগের বিষয়ে সিইসি জানান, দলটির নিজস্ব অবস্থান থাকলেও কমিশন সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ২৪ কেন্দ্রের ভোট বন্ধ করেছে। মাঠ পর্যায়ের নির্বাচন কর্মকর্তারা উপযুক্ত কারণেই কেন্দ্র বন্ধ করেছেন। তবে আগামীতে আরো শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠানে সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- নির্বাচন কমিশনার আবু হাফিজ, মো. শাহনেওয়াজ ও ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ। -ডেস্ক