(দিনাজপুর২৪.কম) জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি বলেছেন, ক্যান্সার, কিডনী ও লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত দরিদ্র পরিবার চিকিৎসা করাবেন সে সামর্থ্য তাদের নাই। অনেক দরিদ্র মানুষ অর্থের অভাবে মৃত্যুর যন্ত্রনায় ভুগছে। এসব দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ রোগে আক্রান্ত রোগীদের সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে বর্তমান সরকার নিয়েছে কার্যকর উদ্যোগ। চিকিৎসার প্রাথমিক দায় মেটাতে আর্থিক সহায়তার পাশাপাশি দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা সুবিধাও দেওয়া হচ্ছে। ক্যান্সার, কিডনী এবং লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত গরীব রোগীদের পাশে দাড়িয়ে তাদের বাঁচার স্বপ্ন দেখিয়েছে বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা।  ১৬ জুলাই বৃহস্পতিবার দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত ক্যান্সার, কিডনী ও লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত রোগীদের আর্থিক সহায়তার চেক, দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষা বৃত্তি প্রদান এবং প্রতিবন্ধী ও অটিজম সম্পর্কে সচেতনতা মূলক কর্মশালায় জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপিপ্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি আরোও বলেন অটিস্টিক শিশুরা সমাজে আর বোঝা হয়ে থাকবে না তাদের মূল্যবান সম্পদ হিসেবে বর্তমান সরকার গড়ে তুলতে চায়। তাদের জীবনকে অর্থবহ করতে চায়। তারাও সমাজের অংশ। তিনি উল্লেখ করে বলেন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার একমাত্র কন্যা আজ অটিজম সচেতনতায় তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখায় প্রধান মন্ত্রীর কন্যা সায়েমা ওয়াজেদ পুতুল আজ বাংলাদেশ তথা বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে প্রশংসিত হয়েছেন।
জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি আরো বলেন, দারিদ্রতা আর টাকার অভাবে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ালেখা যাতে বন্ধ না হয় বিনামূল্য পাঠ্য পুস্তকসহ বিভিন্ন প্রকার বৃত্তি প্রদানের মাধ্যমে সে সমস্ত দরিদ্র মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ার দায়িত্ব নিয়েছেন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। বর্তমান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার লক্ষ্য হচ্ছে তার সন্তানদের মতো এদেশের প্রতিটি সন্তানই যেন সু-শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারে।
দিনাজপুর সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. মোঃ সেলিম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ফরিদুল ইসলাম, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক স্টিফেন মুর্মূ, জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন ঢাকা অটিজম বিশেষজ্ঞ ডা. ইসরাত আলম ইমো, সদর উপজেলা আওমীলীগের সভাপতি ইমদাদ সরকার, সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ কাঞ্চন, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কিশোর কুমার রায় ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসমিন লুনা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোঃ মাইনুল ইসলাম।
অনুষ্ঠানে ক্যান্সার, কিডনী ও লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত ৪৩ জন রোগীদের মাঝে  প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে ২১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তার চেক প্রদান করা হয় এবং ২ শত দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে প্রত্যেককে ২ হাজার টাকা করে ৪ লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। -(মো. নুরুন্নবী বাবু)